করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি সৈয়দপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা মানছেনা কেউ : উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশের কঠোর অবস্থান

মিজানুর রহমান মিলন স্টাফ রিপোর্টারঃ দেশের অর্থনৈতিক চাকা সচল রাখাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়কে মাথায় রেখে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা দিয়ে  সরকারি সিদ্ধান্তে লগডাউন শিথিল করা হলেও সৈয়দপুরে স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা কেউ। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালু রাখাসহ কোন ক্ষেত্রেই সরকারি নির্দেশনা চোখে পড়ছেনা। 
ফলে সরকারি নির্দেশনায় স্বাস্থ্যবিধি পালনে সৈয়দপুরে উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশের যৌথ অভিযান শুরু হয়েছে। গতকাল রবিবার থেকে গোটা উপজেলায় এ অভিযান শুরু করা হয়। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে  সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.নাসিম আহমেদ ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার,থানা পুলিশের পক্ষে সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল ও থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল হাসনাত খানসহ অন্যান্যরা এ অভিযানে অংশ নেন। অভিযান চলাকালে করোনা ভাইরাস সম্পর্কে অবগত থাকা সত্বেও মুখে মাস্ক না পড়ায় অনেককেই তিরস্কার করা হয়। এসময় তাদের শাস্তি হিসেবে মাস্ক কিনিয়ে এনে ওইসব ব্যক্তিসহ মাস্ক নেই এমন লোকজনের মাঝে বিতরণ করানো হয় তাদের মাধ্যমে। গতকাল রোববার থেকে আজ সোমবার পর্যন্ত শহরের বঙ্গবন্ধু সড়ক,শহীদ ডা. জিকরুল হক সড়ক, শেরে বাংলাদেশ সড়ক, শহীদ ডা. শামসুল হক সড়ক শহীদ,জহুরুল হক সড়ক, পাঁচমাথা মোড় বঙ্গবন্ধু চত্বর, বাস টার্মিনালসহ বিভিন্ন এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় সরকারি নির্দেশনা না মেনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হ্যান্ড সেনিটাইজার না রাখাসহ ব্যবসায়ীরা মুখে মাস্ক না পড়ায় শাস্তি হিসেবে ওইসব ব্যবসায়ীদের দোকানপাট সাময়িক বন্ধ করা হয়। পরে অবশ্য তারা ভূল স্বীকার করলে ভবিষ্যতের জন্য তাদের সাবধান করে প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দেয়া হয়। এদিকে সরকারি নির্দেশনা না মেনে অতিরিক্ত সময় পর্যন্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখায়  কিছু ব্যবসায়ীকে শাস্তি হিসেবে পুলিশের গাড়িতে বসিয়ে রাখা হয়। রোবরার থেকে শুরু হওয়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার এ অভিযানের কারণে গোটা উপজেলায় নির্দেশনা না মানা মানুষজনের মাঝে আতংক সৃষ্টি হয়। আজ সোমবার বিকেলে গোটা শহর ঘুরে দেখা যায় ভিন্ন চিত্র। মানুষজনের মুখে শোভা পায় বিভিন্ন ধরণের মাস্ক। প্রয়োজনীয় ছাড়া অন্যান্য সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করার প্রস্তুতি নিতে দেখা যায় ব্যবসায়ীদের। যানজটের শহরে কমতে থাকে যানবাহন ও মানুষজনের চলাচল। তবে ব্যক্তিগত গাড়িসহ রিক্সা ও অটোরিক্সা চলেছে যথারিতি। প্রশাসনের এমন অভিযানে সচেতনমহল সাধুবাদ জানিয়ে বলেছেন এ অভিযান অব্যাহত থাকলে সৈয়দপুর কিছুটা হলেও ভাল থাকবে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মে. নাসিম আহমেদ জানান, সৈয়দপুরকে করোনা   ভাইরাস মুক্ত রাখতে সচেতনতা সৃষ্টিসহ তারা সব ধরণের তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু মানুষজন সচেতন না হয়ে আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তাই জনগন যাতে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতেও নিরাপদে থাকে সেজন্য এ অভিযান শুরু হয়েছে। যা অব্যাহত থাকবে। তিনি সৈয়দপুরবাসীকে করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত থাকতে প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের না হওয়ার আহবান জানান। তবে একান্তই যদি ঘরের বাইরে বের হতে হয় তাহলে সরকারি নির্দেশনায় স্বাস্থবিধি মেনে সামজিক দুরত্ব বজায় রেখে কাজ কর্ম করার আহবান জানান।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য