জমি দখলের মামলায় পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান জেল হাজতে’ সড়ক অবরোধ


মো. কামরুল ইসলাম কামু, পঞ্চগড়ঃ 

পঞ্চগড়ে জমি দখলের মামলায় তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কুদরত-ই-ক্ষুদা মিলনকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। সোমবার দুপুরের পর অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে আদালতের বিচারক মো. মতিউর রহমান তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার বিবরনে জানা যায়, ২০২০ সালের ১৩ মার্চ বাংলাবান্ধা ইউপি চেয়ারম্যান কুদরত-ই-ক্ষুদা মিলন তার লোকজন নিয়ে আব্দুল হামিদ নামে এক ব্যবসায়ীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখলে নিতে হামলা চালায়। হামলায় আব্দুল হামিদের স্ত্রী আমেনা বেগমসহ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনার তিনদিন পর ১৬ মার্চ তেঁতুলিয়া উপজেলার দেবনগড় ইউনিয়নের মো. আব্দুল হামিদ ইউপি চেয়ারম্যান মিলনসহ ১২ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন।

গত ৩০ মার্চ এদের মধ্যে দুই আসামীকে বাদ দিয়ে অন্য আসামীদের ৪ নভেম্বর আদালতে হাজির হতে সমন জারি করা হয়। ওই দিন চার আসামী আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন আবেদন করলে আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করে বাকি আসামীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। এরপর ইউ চেয়ারম্যান মিলনসহ ৫ জন আসামী উচ্চ আদালতের মাধ্যমে অন্তর্বতীকালীন জামিনে ছিলেন। 

উচ্চ আদালতে জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় আসামিরা অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে প্রধান আসামী কুদরত-ই-ক্ষুদা মিলন ও সাইদুল ইসলামের জামিন নামুঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। একই সাথে অন্য তিন আসামীর জামিন মুঞ্জুর করা হয়।।

এঘটনার পর বাংলাবান্ধা ইউপি চেয়ারম্যান কুদরত-ই-খুদা মিলন এর সর্মথকরা তেতুঁলিয়ায় বাংলাবান্ধা সড়ক অবরোধের চেষ্টা করে এবং রাস্তায় টায়ার জালিয়ে দেয়। পরে তেতুঁলিয়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এ বিষয়ে তেতুঁলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আবু সায়েম মিয়া জানান ‘ এক ঘন্টার মতো সড়ক অবরোধ করে রাখে তারা। পরে  আমরা তাদের সরিয়ে দিলে তারা আর সড়ক তুলে নেয়। তবে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য