স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জার্নি অফ ইউনিটির দেয়া কম্বল হাতে পেয়ে আনন্দিত তারা


মেহেদী হাসান ,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ
 

আইজ হামার তি ঠান্ডা খুব-থাকা যায়না বাগ্গে। এলা ছুয়ালা হামাক কম্বল দিছে,ছুয়ালার ভালা হোক। মুই অনেক খুশি বাপু। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জার্নি অফ ইউনিটির দেয়া কম্বল হাতে পেয়ে ঠিক এমনি ভাবে মনে আনন্দটি প্রকাশ করেছেন ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা মালেকা বানু।

শুধু তিনি নয় জেলা বিভিন্ন এলাকার প্রায় ৫০জন অসহায়দের মাঝে কম্বল বিতরণ করেছেন এই সংগঠনটি। শীতের কম্বল হাতে পেয়ে যেন অনেকটাই খুশি হয়েছেন তারা। বাড়িয়ে দেই সমাজের দুস্থদের প্রতি হাত” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ঠাকুরগাঁওয়ে ৫০জন অসহায়দের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জার্নি অফ ইউনিটি। 

সোমবার(১১ জানুয়ারি) সকালে জেলা পরিষদ বিডি হল প্রাঙ্গনে প্রধান অতিথি হিসাবে এই শীতবস্ত্র বিতরণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত,জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা জাবেদ আলী, ডা.শুবেন্দু কুমার দেবনাথ,সংগঠনের উপদেষ্টা নাহিদ রেজা,স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জার্নি অফ ইউনিটির সভাপতি রাকিব আল রিয়াদ,যন্ম সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান,সহ-যুন্ম সাধারণ সম্পাদক শাহনাজ পারভিন,

সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদ রানা,দপ্তর সম্পাদক মাইশা জামান রিফা,সদস্য সাকিব আল মোস্তফা,মুন্না রহমান,আঁখি,পায়েল ইসলাম সহ সংগঠনের অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। কম্বল হাতে পেয়ে সংগঠনটিকে ধন্যবাদ জানিয়ে মালেকা বানু নামের একজন বলেন,গত কিছুদিন ধরে শীত কম ছিলো। আজ হঠাৎ করে শীত বেড়ে গেছে। ঠিক এমনি সময় আজকে আমাদের মাঝে কম্বল দিলো  এই সংগঠনটি। ধন্যবাদ জানাই তাদের।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন,জেলার বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা মিলে এই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটিন গঠিত। আজকে আমাদের তাদের উৎসাহিত করার দরকার। তারা এই ছোট বয়সেই সমাজের অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে। আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই। এর আগেও তারা আমার কাছে এসেছে আমি প্রতিটি সময় তাদের পাশে থাকার চেষ্টা করি। কারন তাদের কার্যকলাপ আমার কাছে অনেকটাই ভালো লাগে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য