গৃহহীনদের জন্য সৈয়দপুরে নির্মাণাধীন গৃহ পরিদর্শন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার আবদুল ওয়াহাব মিঞা


মিজানুর রহমান মিলন সৈয়দপুরঃ

রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল ওয়াহাব ভূঞা বলেছেন, জাতিরজনক বন্ধুবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বপ্ন দেখেছিলেন দেশের  প্রতিটি মানুষ খাদ্য,আশ্রয় ও শিক্ষা পাবে এবং উন্নত জীবনের অধিকারী হবেন। সেই উদ্দেশ্যে তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বাধীনতাও লাভ করেছিল। আর বঙ্গবন্ধুর সেই লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছেন তাঁরই সুযোগ্য কন্যা  দেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

তিনি  আরও বলেন, ২০২০ সালের মার্চ থেকে শুরু হয়ে আগামী ২০২১ সালের মার্চ পর্যন্ত চলবে মুজিববর্ষ। তাই আগামী মার্চে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য উপহার হিসেবে গৃহ দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছেন। এরই অংশ হিসেবে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য দেশব্যাপী গৃহ নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে।এজন্য সৈয়দপুর উপজেলায় ভূীমহীন ও গৃহহীনদের জন্য সরকারিভাবে ৩৪টি এবং রংপুর বিভাগীয় প্রশাসন দুইটিসহ সর্বমোট ৩৬ টি গৃহ নির্মাণ করা হচ্ছে। 

আগামী বছরে মুজিবর্ষের মধ্যেই ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার নির্মিত গৃহগুলো বরাদ্দ প্রদান করা হবে। তিনি আজ বুধবার বিকেলে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের নিজবাড়ী মৌজায় খাস জমিতে নির্মাণাধীন গৃহ পরিদর্শনকালে এ কথাগুলো বলেন। 

এ সময় রংপুর বিভাগীয় অতিরিক্ত কমিশনার (রাজস্ব) ও অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক), নীলফামারী জেলা প্রশাসক মো. হাফিজুর রহমান চৌধুরী, সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাসিম আহমেদ,উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. রমিজ আলম, কামারপুকুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো. রেজাউল করিম লোকমান প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। 

গৃহ নির্মাণ কাজ পরিদর্শনকলে রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল ওয়াহাব মিঞা নিজবাড়ী গুচ্ছগ্রামে খাস জমিতে  ‘ক’ শ্রেণির ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য নির্মাণাধীন প্রতিটি গৃহ ঘুরে দেখেন। এছাড়াও তিনি গৃহগুলোর সুবিধাভোগীদের সঙ্গেও কথা বলেন। 

এ সময় তিনি তাদের সার্বিক বিষয়ে খোঁজখবর নেন। পরিদর্শন শেষে তিনি বিভাগীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি গৃহ নির্মাণের ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা নীলফামারী জেলা প্রশাসক মো. হাফিজুর রহমান চৌধুরীর হাতে তুলে দেন। সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাসিম আহমেদ জানান, মুজিববর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলায় ৩৬টি গৃহ নির্মাণ করা হচ্ছে। 

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ -২ প্রকল্পের আওতায় ৩৪ টি এবং রংপুর বিভাগীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুইটিসহ সৈয়দপুর উপজেলায় মোট ৩৬টি গৃহ রয়েছে। দুই কক্ষ বিশিষ্ট, ল্যাট্টিন ও গোসলখানাসহ এ সব গৃহ নির্মাণে ব্যয় হবে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। নির্ধারিত নকশা অনুযায়ী  উপজেলা প্রশাসন এসব গৃহ নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করছে। চলতি মাসের শেষে শেষ হবে নির্মাণ কাজ। 

উল্লেখ্য গত ১৩ নভেম্বর নীলফামারী জেলা প্রশাসক মো. হাফিজুর রহমান চৌধুরী  ওইসব গৃহ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য