জলঢাকায় জমি দখল নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ভিডিও ভাইরাল


আব্দুল মালেক বিশেষ প্রতিনিধিঃ

নীলফামারীর জলঢাকায় জমি দখল করাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে অন্তত ১০/১৫ জন আহত হয়েছে। আজ বুধবার (২ ডিসেম্বর) সকালে পৌর শহরের বাসষ্ট্যান্ড জুগীপাড়া সড়ক সংলগ্ন "ছ" মিলের সামনে এ ঘটনা ঘটেছে । এ সংঘর্ষে গুরুতর আহত হয়েছেন  আবু বক্কর সিদ্দীক (৫৫) হামিদা বেগম (২৪),মাজেদা বেগম (৩৬) এদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে বলে জলঢাকা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সুত্রে জানা গেছে। 

অন্যান্য আহতরা হলেন সোনালী আক্তার (২৬),কাজলী বেগম (২৫),ওমর ফারক (২২) ও আল আমিন (২০) এবং বাকি আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পৌর শহরের কদমতলী এলাকার মৃত কাছিম উদ্দীনের ছেলে আবু বক্কর সিদ্দীক (৫৫) পৈত্রিক সূত্রে বাসস্ট্যান্ড সংলগ্নে দুই দাগে ৭ শতাংশ জমির মালিক। 

এরই সূত্র ধরে,পহেলা ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) সকালে আবু বক্কর সিদ্দীক উক্ত জমিতে একটি টিনসেট চালা উত্তোলন করে জমিটি পুনরায় দখলে নেন এবং তার পরিবার পরিজন সেস্থানেই রাত্রিযাপন করেন। 

এ খবর জানতে পেরে উপজেলার পশ্চিম খুটামারা এলাকার মৃত নবাব উদ্দীনের ছেলে নজরুল ইসলাম (৫৮) ক্রয়কৃত ১৪.৫০ শতক জমি ভোগদখলীয় দাবি করে। এবং বুধবার সকালে নজরুল ইসলাম তার ভাড়াটিয়া শতাধিক লোকসহ দলবদ্ধ ভাবে দেশীয় অস্ত্র লাঠি-ছোরা নিয়ে হঠাৎ আবু বক্কর সিদ্দিক ও তার পরিবারের সদস্যদের উপর রক্তক্ষয়ী আক্রমণ করে। এতে উভয়ের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। 

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় অনেকে আবার মুঠো ফোনে ভিডিও করে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল করেছে । এইসব ভিডিওতে দেখা যায়, নজরুল তার ভাড়াটিয়া লোকজন দিয়ে সিদ্দিক পরিবারের লোকজনদেরকে লাটি দিয়ে বেধরক পিটাচ্ছে। এবং বাসা থেকে তাদেরকে টেনেহিঁচড়ে বাহির করে দিচ্ছে। 

এ বিষয়ে জলঢাকা থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান (ওসি) মুঠোফোনে জানান, আপনারা তদন্ত করেন। তবে এ ঘটনায় কেউ কোন অভিযোগ করেননি বলে তিনি জানান। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য