মায়ের আসনকে দখল করলো মিম চৌধুরী


খাদেমুল মোরসালিন শাকীর, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ 

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার পুটিমারী ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা সদস্য পদে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বে-সরকারী ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন প্রয়াত নাজনীন চৌধুরীর মেয়ে মিম চৌধুরী (২৮)।

পুটিমারী ইউনিয়নের ৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডে মোট ভোটার ৮ হাজার ৫শ’ ১৮ জন। তারমধ্যে পুরুষ ভোটার ৪ হাজার ২শ’ ৫৯ জন ও মহিলা ভোটার ৪ হাজার ২শ’ ৫৯ জন। এ পদের জন্য প্রতিদন্দ্বিতা করেন ৩জন প্রার্থী। সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত বিরতীহীন ভাবে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। 

ভোট কেন্দ্রে মোট ৩জন ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্ব পালন করেন। সকাল থেকে প্রত্যেক ভোট কেন্দ্রে পুলিশ ও আনসার সদস্যরা নিরাপত্তা জোরদার করে রাখে। ভোটারদের উপস্থিতি কম থাকায় ভোট কেন্দ্রে পিজাইডিং ও পুলিং অফিসাররা  ছিল ব্যস্তহীন। তবে সকালের দিকে ৪ নং ওয়ার্ডে শালডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল কিছুটা চোখে পড়ার মত। 

কোথাও কোন বিশৃঙ্খলা ছাড়াই সুষ্ঠ্যু ভাবে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৩ প্রার্থীর মধ্যে মোছাঃ মিম চৌধুরী (হেলিকপ্টার),হাসু বেগম (কলম) ও রৌফা বেগম (মাইক) প্রতীক নিয়ে ভোটের লড়াইয়ে অংশ নেন। বিপুল প্রতিদন্দ্বিতার মধ্যে ৩ কেন্দ্রে ৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের প্রয়াত মহিলা সদস্য নাজনীন চৌধুরীর মেয়ে মিম চৌধুরী  (হেলিকপ্টার) মোট ২হাজার ২শ ৪৭ ভোট পেয়ে বে-সরকারী ভাবে নির্বাচিত হয়ে মায়ের আসন দখল করেন। 

তার নিকটতম  প্রতিদন্দ্বি হাসু বেগম (কলম) ১ হাজার ২শ ৮৭ ভোট পায়।  উল্লেখ্য যে, পুটিমারী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মহিলা সদস্য নাজনীন চৌধুরী চলতি বছরের ৫ জুলাই অসুস্থ্য হয়ে মৃত্যু বরণ করেন। পরের দিন ৬ জুলাই ওই আসনকে শূন্য ঘোষনা করা হলে এ আসনে উপ-নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষনা করেন উপজেলা রিটার্নিং অফিসার।

কিশোরগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার রফিকুল ইসলাম বলেন, প্রত্যেক ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল কম। তবে প্রশাসন বিশৃঙ্খলা এড়াতে সর্বদা প্রস্তুত ছিল। কোথাও কোন অপৃতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য