ডিমলায় প্রতিপক্ষের আঘাতে গর্ভবতী সহ আহত -২

জাহাঙ্গীর রেজা, স্টাফ রিপোর্টারঃ
ডিমলায় পারিবারিক সংক্রান্ত রিবোধের জেড়ে ছাগল গাছ খেয়েছে এমন তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের আঘাতে এক গর্ভবতী সহ বৃদ্ধা আশংকাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। এ ঘটনায় ডিমলা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন আহত বৃদ্ধা মায়ের ছেলে ওবায়দুল ইসলাম।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার সদর ইউনিয়নের সরদারহাট নামক এলাকায় বসবাস রত বাসিন্দা মতিউর রহমানের ছেলে ওবায়দুল ইসলামের সাথে একই এলাকার বসবাসরত আব্দুস ছাত্তারের ছেলে রবিউল ইসলাম মানিকের সাথে দীর্ঘদিনের পারিবারিক বিরোধ চলে আসছে। 

এমতাবস্থায় গত ১৬ সেপ্টেম্বর বুধবার বিকেলে ওবায়দুল ইসলামের বাড়ির পিছনে তার জমিতে প্রতিপক্ষ রবিউল ইসলাম মানিকের ছাগল চারাগাছ খাইতে দেখে ওবায়দুল ইসলামের বৃদ্ধা মা জাহেদা বেগম ছাগলটিকে তারিয়ে দিলে প্রতিপক্ষ রবিউল ইসলাম মানিক এসে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। 

বৃদ্ধা জাহেদা বেগম গালিগালাজ না করার জন্য বাঁধা নিষেধ করে প্রতিবাদ করায় তাকে লাঠি দিয়ে আঘাত করলে তার চিৎকার শুনে গোবিন্দগঞ্জ থেকে মেহমান খেতে আসা শালিকা চার মাসের অন্তঃসত্তা সারাবান তহুরা রক্ষা করতে এগিয়ে আসলে তাকেও তার বুকে, 

পিঠে, গর্ভে সহ বিভিন্ন স্থানে আঘাত করলে অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পরে থাকা অবস্থায় ঘটনাস্থল থেকে এলাকাবাসী ওবায়দুল ইসলামকে মুঠো ফোনে খবর দিলে দ্রæত ঘটনাস্থল ছুটে এসে আহত মা জাহেদা বেগম ও শালিকা শারাবান তহুরাকে উক্ত স্থান থেকে উদ্ধার করে অটোবাইক যোগে ডিমলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। বর্তমান দুজনেই সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে। 

এ ব্যপারে ডিমলা থানায় লিখিত অভিযোগের ভিত্তিত্বে আজ শুক্রবার (১৮-সেপ্টেম্বর) বিকালে থানার সেকেন্ড অফিসার উজ্জ্বল শাহ্ তার সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থল গিয়ে তদন্ত করেছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য