নীলফামারী সদরে বন্যায় প্লাবিত হয়ে আটকে পড়েছে প্রায় ৬’শ পরিবার

মোঃ সাদিক-উর রহমান শাহ্ (স্কলার) রংপুর ব্যুরোঃ

গত কয়েক দিন ধরে টানা বর্ষনের ফলে বন্যায় প্লাবিত হয়েছে নীলফামারী সদরের ০৮নং পঞ্চপুকুর ইউনিয়নের বেশ কিছু এলাকা। এতে পানি বন্ধি হয়েছে প্রায়  ৫শ পরিবার। পানি বন্দি হওয়ায় খাবার সংকটে পড়েছে হাজারো মানুষ। 

সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ইউনিয়নের ০৫নং ওয়ার্ডে। সরকারী বা বেসরকারীভাবে ত্রান ও শুকনো খাবারের সহায়তা পায়নি ভুক্তভোগীরা। পঞ্চপুকুর ইউনিয়নের ভিতর দিয়ে বয়ে যাওয়া যমুনেশ^রী, চারালকাটা ও বুড়ী খোড়া নদীর দুইকুল ছাপিয়েছে টানা বর্ষনে। 

নদী ভাঙ্গনের ফলে প্লাবিত হয়েছে এসব এলাকা। প্লাবিত পানি অপসারনের ব্যবস্থা না থাকায় নষ্ট হয়ে গেছে প্রায় কয়েক’শ একর ফসলী জমি এবং তলিয়ে গেছে কাঁচাপাকা রাস্তাসহ অসংখ্য ঘরবাড়ী। পরিবার গুলো বেশীর ভাগই নদী তীরবর্তী হওয়ায়, প্লাবিত হয়েছে বন্যায়। 

ফলে গবাদি পশু ও বিশুদ্ধ খাবার পানি নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছে সাধারন মানুষ। চুলা গুলো হাটু কোমর তলিয়ে যাওয়ায় রান্না করার নাই তেমন ব্যবস্থা। ফলে না খেয়ে থাকতে হচ্ছে অনেককেই। আবার কেউ খাচ্ছে আত্মীয় স্বজনদের পাঠানো খাবার। এসব খেয়ে কোনরকম দিনাতীপাত করছে তারা। 

এমতবস্থায় সরকারের সহযোগীতা কামনা করছেন তারা। ইউপি সদস্য বেলাল হোসেন জানান, ব্যক্তিগত ভাবে সাধ্যমত কিছু কিছু অসহায় পরিবারে শুকনো খাবার কিনে দিয়েছি। ইউপি চেয়ারম্যান হবিবর রহমান সরকার বলেন, ইউএনও স্যার এসেছিলেন, প্রায় ১শত পরিবারকে শুকনো খাবার দিয়েছেন। তিনি তালিকা করতে বলেছে। 

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এলিনা আক্তার বলেন, আমি সরেজমিনে প্লাবিত এলাকায় গিয়েছি কিছু পরিবারকে শুকনো খাবার দিয়েছি। পানি বেশি থাকায় ভিতরে যেতে পারিনি, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের তালিকা করতে বলেছি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য