শুভ’র ‘রহস্যজনক’মৃত্যু "থানায় অভিযোগ


হাসানুজ্জামান হাসান, লালমনিরহাটঃ 

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ সরকারী করিম উদ্দিন কলেজের সাবেক সহকারী অধ্যাপক প্রয়াত আব্দুল হকের ছোট ছেলে জাকারিয়া বিন হক শুভ'র মরদেহ ঢাকায় বসবাসরত মোহাম্মদপুর এলাকার ২৪/১ তাজমহল রোডের বাসা থেকে উদ্ধার করে শুভ'র মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে নিয়ে যায় পুলিশ। 

গত ২৪ সেপ্টেম্বর ( বৃহস্পতিবার)  বিকেলে শুভ'র মৃত্যুর খবর নিজ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছালে পুরো এলাকা জুড়ে শোকের ছায়া নেমে পড়ে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া শেষে জাকারিয়া বিন হক শুভ ওয়ালটন মোবাইল সেক্টর গাজীপুর জোনের ডিস্ট্রিবিউটর নেটওয়ার্কে কর্মরত ছিলেন। সে গত বছর ২১শে ডিসেম্বর  শেহনিলা নাজ(২১)এর সহিত বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিবাহের পর শুভ স্ত্রীকে নিয়ে আলাদা ভাবে ভাড়া বাসায় বসবাস করতো এবং তার স্ত্রী শুভ'র পরিবারের কারো সাথে যোগা যোগ করতে দিতো না। 

তার উপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো বলে মোহাম্মদপুর থানায় দায়েরকৃত অভিযোগে উল্লেখ করেছেন শুভ'র বোন হাসিনা নাজনীল বিনতে' হক(৩৭)।তার আরো অভিযোগ করেছেন, আমার ভাইয়ের মৃত্যুর পর লাশ কি করতে হবে,কোথায় নিতে হবে এবং মর্গে আনার পরও স্ত্রীর ও শ্বাশুররী কোন যোগাযোগ ও সহযোগীতা করেননি। এমনকি পরিকল্পিতভাবে শুভ'কে হত্যার জন্য তার স্ত্রী ও শ্বাশুরী দায়ী বলে অভিযোগে  উল্লেখ করা হয়েছে।

অপরদিকে শুভ’র শাশুড়ি আছমা বেগম (৫০) মৃত্যুর কারন হিসাবে জানিয়েছেন, স্ত্রীর সাথে সিগারেট খাওয়া নিয়ে কথাকাটির জেরে সে ফ্যানের সাথে ওড়না ঝুলিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে তার স্ত্রী গিয়ে ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে তা নামিয়ে ফেলে।

ঘটনা শোনার পর শুভ'র গ্রামের বাড়ির কিছু বন্ধু-বান্ধব সেখানে গিয়ে দেখতে পান, বাসার বেডরুমের মেঝেতে শুভ’র মরদেহ পরে আছে। পরে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায়। জাকারিয়া বিন হক শুভ’র কয়েকজন বন্ধু দাবি করেছেন, শরীরের ওজন অনুযায়ী যে ফ্যানে ঝুলে আত্মহত্যার কথা বলা হচ্ছে এরকম ঘটনা ঘটলে তা বেঁকে যাওয়ার কথা। কিন্তু সেটা স্বাভাবিকভাবেই ঘুরছে। এছাড়া বিছানা থেকে ফ্যানের উচ্চতা তূলনামূলক কম থাকায় সেখানে ঝুলে আত্মহত্যা করাও প্রশ্নবিদ্ধ।

মোহাম্মদপুর থানার এসআই এসআই ফারুকুল গণমাধ্যমকে বলেন, শুভ আত্মহত্যা করেছেন কিনা তাকে হত্যা করা হয়েছে সে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলা এখনই সম্ভব হচ্ছে না। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন এবং ঘটনার তদন্তের পর বিস্তারিত বলা সম্ভব হবে। আপাতত বিষয়টি রহস্যজনক বলেই মনে হচ্ছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য