ঠাকুরগাঁওয়ে দেড় শতাধিক বিঘা জমির ধান নস্টের অভিযোগ ক্ষতিপুরনের দাবি মেহেদী হাসান,


মেহেদী হাসান ঠাকুরগাঁও
প্রতিনিধিঠাকুরগাঁওয়ে ইটভাটার নির্গত গ্যাসে দেড় শতাধিক বিঘা জমির ধান নস্ট হওয়ার অভিযোগ করেছেন কৃষকরা। উৎপাদিত ধান নস্ট হয়ে ক্ষতির মুখে পরে দুঃশ্চিন্তায় রয়েছেন তারা। কৃষকের অভিযোগের প্রেক্ষিতে আজ শনিবার সকালে প্রশাসনের কর্মকর্তাগন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিপুরনে আশ্বাস দিয়েছেন কৃষকদের।প্রশাসন জানায়, সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নের কাজিপাড়া এলাকায় এক প্লটে ৫শতাধিক বিঘা জমিতে ধান চাষাবাদ করেছেন ওই এলাকার কৃষকরা। আবাদি জমির আশপাশে এমজিবি, নীড় এসএমবি ব্রিকস্ ইটভাটার নির্গত গ্যাসে সেখানে দেড় শতাধিক জমির ধান নস্ট হয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেন কৃষকেরা। প্রেক্ষিতে প্রশাসনের কর্মকর্তাগন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে তদন্ত কমিটির মাধ্যমে আগামী তিন দিনের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের তালিকা তৈরির নির্দেশ দেন কৃষি বিভাগকে। তদন্ত সাপেক্ষে যদি প্রমাণিত হয় ইটভাটার কারনে কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তাহলে ক্ষতিপুরনের ব্যবস্থা করে দেয়া হবে। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক আব্দুল্লাহ আল মামুন, জহিরুল ইসলাম, মকবুল হোসেন, মিজানুর রহমানসহ অনেকে জানান, গেল বছরেরও আমাদের অনেকে ইটভাটার গ্যাসের কারনে ক্ষতির শিকার হয়েছে। তখনও ক্ষতিপুরন দেয়ার কথা ছিল কিন্তু দেয় নি। আমরা এসব ইটভাটার কারনে বার বার ক্ষতির মুখে পরছি। আমরা চাই প্রশাসন যেন এবার আমাদের ক্ষতিপুরনের ব্যবস্থা করে দেন। বিষয়ে আকচা ইউনিয়ন ব্লকের উপ-সহকারি কৃষি অফিসার সোমা আক্তারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, প্লটে পুরোটাতেই ২৮ জাতের ধান আবাদ করেছেন কৃষকরা। আমরা জাতের ধানটি আবাদ করতে নিষেধ করেছিলাম। তার কারন হচ্ছে জাতটিতে রোগ বালাই বেশি হয়। আমরা ধারনা করছি কৃষকের যে ক্ষতি হয়েছে তা ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হয়ে। তারপরও যেহেতু তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আমরা বিষয়টি আরো পর্যালোচনা করে পরবর্তিতে জানাতে পারবো। আকচা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সুব্রত কুমার বর্মন জানান, কৃষকরা অভিযোগ করেছে ইটভাটার নির্গত গ্যাসে তাদের ধানের ক্ষতি হয়েছে। আর কৃষি বিভাগের লোক ধারনা করছে ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হয়ে ক্ষতি হয়েছে। আমি চাই কৃষক কোন না কোন ভাবে ক্ষতির শিকার হয়েছে। তাদেরকে যেভাবেই হোক সহাযোগীতা করা প্রয়োজন। বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, ধান ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার আশপাশে তিনটি ইটভাটা রয়েছে। তাই ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা অভিযোগ করেছেন ভাটার নির্গত গ্যাসে তাদের ধান নস্ট হয়েছে। বিষয়ে তদন্ত কমিটি করে দেয়া হয়েছে। তদন্ত কমিটি আগামী তিন দিনের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকের তালিকা কি কারনে দেড় শতাধিক বিঘার ধান নস্ট হলো তার প্রতিবেদন দাখিল করতে। তার উপড় নির্ভর করে কৃষককে ক্ষতিপুরণ দেয়া হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য