ভাঙ্গুড়ায় স্বেচ্ছায় লকডাউন খানমরিচ গ্রাম ভাঙ্গুড়া:

রাজিবুল রোমিও- পাবনা,
রাজশাহী বিভাগের পাবনা জেলার ভাঙ্গুড়া  উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের "খানমরিচ" গ্রামকে স্বেচ্ছায় "লকডাউন" ঘোষণা করে মাইকিং করেছে দিয়েছে স্থানীয় গ্রামের প্রধান বর্গ সচেতন যুব সমাজ। মঙ্গলবার ( এপ্রিল) সকালে গ্রামের মানুষদের নিরাপদ আশ্রয়ে রাখতে নিজেরা থেকেই পুরোপুরি লকডাউন শুরু করে। এসময় গ্রামটির তিনটি মূল প্রবেশ পথে লাল পতাকা দিয়ে নিশান এবং বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেড দিয়েছে খানমরিচ গ্রামের সচেতন যুবসমাজ।একইসঙ্গে গ্রামজুড়ে জীবাণুনাশক ওষুধ ছিটানোর পাশাপাশি প্রবেশ পথে রাখা হয়েছে জিবানুনাশক স্প্রে, পানির ট্যাংক সাবান।  এছাড়া গ্রামে অন্য এলাকার কাউকে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। আবার যৌক্তিক কারণ ব্যতীত কাউকে গ্রাম থেকে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না। এর জন্য গ্রামের সচেতন যুব সমাজ স্বেচ্ছায় কড়া নজরদারি এবং টহলে রেখেছে গ্রামের মূল তিনটি প্রবেশপথ। খানমরিচ গ্রামের বাসিন্দারা "দৈনিক কলম সৈনিক"কের প্রতিবেদককে বলেন, বাইরে থেকে অনেক লোকজন আমাদের গ্রামে এসে ঘোরাঘুরি করে। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান খানমরিচ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সেক্রেটারিকে জানানো হয়।  পরবর্তীতে খানমরিচ গ্রামের প্রধান বর্গ গ্রামের সচেতন যুব সমাজ নিজেরা আলোচনা সাপেক্ষ বাইরের লোকের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।  দৈনিক কলম সৈনিক কে "সচেতন যুব সমাজ" থেকে বলা হয়, আমরা খানমরিচ  গ্রামের  তিনটি প্রবেশপথে লাল নিশান বাঁশ দিয়ে ঘিরে দিয়েছি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বাইরের কাউকে গ্রামে ঢুকতে দেবো না। স্থানীয় গ্রামের বাসিন্দা "দৈনিক বুলেটিন" স্থানীয় প্রতিনিধি মামুন "দৈনিক কলম সৈনিক"কে বলেন, খানমরিচ গ্রামের তিনটি মূল প্রবেশ পথ, খানমরিচ বিএম কলেজ এলাকা, কুমোর গারা বটতলা এলাকা এবং খানমরিচ দক্ষিনপাড়া এলাকা সহ পুরো খানমরিচ গ্রাম লকডাউন ঘোষণা করেছেন গ্রামের প্রধান বর্গ স্থানীয় যুবকেরা। গ্রামের স্থানীয় "সচেতন যুব সমাজ" প্রতিবেদককে আরো বলেন, আমরা পুরো এলাকা বহিরাগতদের জন্য সতর্কতামুলক স্বরূপ মাইকিং করেছি। যে কোনো যানবাহন বা পায়ে হেটে কেউ যেনো গ্রামে প্রবেশ না করে, এরপরও যদি বাহিরের কেউ প্রবেশের চেষ্টা করে তার বিরুদ্ধে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নেবো

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য