নারায়নগঞ্জ থেকে আসা সৈয়দপুরের এক যুবক করোনায় আক্রান্ত,

মিজানুর রহমান মিলন সৈয়দপুর প্রতিনিধিঃ নারায়নগঞ্জ থেকে আসা নীলফামারীর সৈয়দপুরের এক যুবক (৩৮) করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ওই যুবকের বাড়ি সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের খালিশা ডিং পাড়ায় (বকশী পাড়া)। জানা গেছে, ওই যুবক নারায়ণগঞ্জের চাষাড়ায় সুগন্ধা প্লাস  হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্টের ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি গত ৪ এপ্রিল শরীরে জ্বর নিয়ে সৈয়দপুরে তাঁর বকসীপাড়ার গ্রামের বাড়িতে আসেন। এরপর গ্রামের লোকজন বিষয়টি  সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করেন। পরে সৈয়দপুর উপজেলা প্রশাসন থেকে তাকে কোয়ারেন্টিনে নেওয়া হয়। এরপর উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে গত ৭ এপ্রিল তার নমুনা সংগ্রহ করে নীলফামারী সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মাধ্যমে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।   আজ বৃহস্পতিবার রংপুর মেডিক্যাল কলেজে নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে ওই যুবকের শরীরে করোনা ভাইরাসের পজিটিভ পাওয়া যায়। সৈয়দপুর উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু মো. আলেমুল বাশার বিষয়টি নিশ্চিত করেন জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ওই যুবকের বাড়িসহ তাঁর আশ পাশের আরো বিশটি বাড়ি লকডাউন করা করা হয়েছে। এদিকে অপর একটি সুত্রে জানা গেছে, নারায়নগঞ্জের ওই হোটেল মালিকের একাধিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। ওইসব প্রতিষ্ঠানে সৈয়দপুর ও রংপুরের প্রায় দেড়শ জন শ্রমিক কর্মচারি নিয়োজিত ছিল। সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের কারণে নারায়নগঞ্জকে লগডাউন করে প্রশাসন। ওই লগডাউনের মধ্যে তারাও ছিল। কিন্তু তারা সেখান থেকে মাইক্রোবাস, এ্যাম্বুলেন্সসহ বিভিন্ন যানবাহনে তাদের নিজ নিজ এলাকায় চলে আসে। এদের মধ্যে খাতামধুপুর ও কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নসহ বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা রয়েছে। এরমধ্যে খাতামধুপুরের ওই যুবক করোনায় আক্রান্ত হল। সুত্রটি জানায় অবিলম্বে নারায়মগঞ্জের ওই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সৈয়দপুরের বাসিন্দাদের চিহৃিত করে তাদের আবাসস্থলের আশেপাশে লগডাউন করা না হলে সৈয়দপুর মারাত্মক ঝুঁকিতে পড়বে। এ ব্যাপারে সৈয়দপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার  (ভূমি) পরিমল কুমার সরকারের সাথে কথা হলে তিনি বিষয়টি জেনেছেন। এজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য