স্বেচ্ছাসেবীর ক্ষুদে বার্তায় অসহায়ের বাড়িতে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিলেন সাবেক চেয়ারম্যান

শুভ কুমার ঘোষ,সিরাজগঞ্জঃ
সকালে মোবাইল হাতে নিয়ে হঠাৎই নজরে আসে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এর একজন স্বেচ্ছাসেবীর একটি ক্ষুদে বার্তা। সেখানে লেখা দুটি অসহায় পরিবার খাদ্যহীনতায়। শুধু এসএমএস টা দেখতেই যতটুকু সময়। সঙ্গে সঙ্গে খাদ্যসামগ্রী সহ সকল বাজার করে নিজে গিয়ে পৌঁছে দেন সেই অসহায় দুটি পরিবারের হাতে। যে মানবতার সৈনিকের কথা বলছিলাম তিনি হলেন সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার পূর্নিমাগাতী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এস,এম,রাশেদুল হাসান (রাশেদ)স্বপ্নজয় বাংলাদেশ এর স্বেচ্ছাসেবী সামিউল ইসলাম শুভ জানান, আমাদের কাছে তথ্য আসে পূর্ব রামকৃষ্টপুরের জাহিদুল নামে একজন মানসিক প্রতিবন্ধী সহ তার পরিবার না খেয়ে আছে। এই জাহিদুল এক সময় ধামাইলকান্দি বাজারে সেলুনে কাজ করে তার সংসার চালাতো। কিন্তু এখন সে মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় তার সংসারে উপার্জন করার ময় কেউ নেই। এর পাশাপাশি আরেকটা পরিবারও খুব অসহায় অবস্থায় খাদ্যহীন আছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে এই মুহুর্তে আমাদের সংগঠন এর ফান্ড না থাকায় আমাদের ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এস,এম,রাশেদুল হাসান (রাশেদ)ভাইকে এসএমএস এর মাধ্যমে জানাই। উনি সকালে ম্যাসেজটি দেখা মাত্রই অসহায় পরিবার দুইটিকে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেন। এসময় তিনি সংগঠনের পক্ষ থেকে তার প্রতি কৃতজ্ঞতাও জ্ঞাপন করেন।
এবিষয়ে পূর্নিমাগাতী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এস,এম,রাশেদুল হাসান (রাশেদ) বলেন, উল্লাপাড়ার মাননীয় সংসদ সদস্য তানভীর ইমামের নির্দেশনা আছে আমরা সবাই যেন এই ক্রান্তিলগ্নে সার্বিকভাবে অসহায় দুস্থদের পাশে থাকি। নির্দেশনা অনুযায়ী মানবতার খাতিরে আমরা আওয়ামী পরিবার সহ সবাই চেষ্টা করে যাচ্ছি যেন করোনা ভাইরাস এর ভয়াবহতাতেও কেও না খেয়ে দিন না কাটায়। যার ধারাবাহিকতায় ক্ষুদে বার্তার মাধ্যমে বিষয়টি জানার পরেই খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেই পরিবার দুটিকে। এভাবেই অসহায়ের পাশে থাকার আশা ব্যাক্ত করে সকলেরই সামর্থ্য অনুযায়ী এখন এই ক্রান্তিলগ্নে এগিয়ে এসে অসহায়দের পাশে দাড়ানোরও আহ্বান জানান তিনি।




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য