লোহাগাড়ায় তুচ্চ ঘটনাকে কেন্দ্র করে লঙ্কাকান্ড : থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি :
লোহাগাড়ায় তুচ্চ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছেলের শ্বশুর বাড়ির লোকজনের হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। ঘটনাটি রোববার রাতে লোহাগাড়া উপজেলার আধুনগর হাজির পাড়া এলাকায় ঘটে। ঘটনায় ২০ এপ্রিল (সোমবার) সাকালে উভয় পক্ষের লোহাগাড়া থানায় পাল্টাপার্টি অভিযোগ করেছে। ছেলেন বাবা উপজেলার আধুনগর হাজির পাড়া এলাকার মৃত আবদুল লতিপের ছেলে আনোয়ার হোসেন (৬২) বাদী হয়ে জনের নাম উল্লেখ করে লোহাগাড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযুক্তরা হলেন, উপজেলার চুনতি হাজিরাস্তা জে.এম সিদকার পাড়া এলাকার মৃত ফেরদৌস আহমদের ছেলে ছেলের শ্বশুর নুরুল আবছার (৫৫), তার ছেলে মো. রাকিব (১৯), মো: সাকিব (১৯), নুরুল হুদা (৪২) পুত্রবধু আফরিন সোলতানা (২২) অভিযোগে প্রকাশ, ঘটনারদিন রাতে তুচ্চ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুত্র বধু ছেলের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। সময় অবিযুক্ত আফরিন মোলতানা তার কন্যা সন্তানকে মারলে অভিযোগকারী না মরকে বারণ করলে এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তারপুত্র বধু তার বাপের বাড়িতে খবর দিলে রাতে লোকজন এসে হামলা চালায়। এতে আনোয়ারকে বেদড়ক মারধর করে ফুলা জখম করে। থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিস ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে। স্থানীয় পুলিশের সহায়তায় আনোয়ারকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। স্থানীয়দের উপস্থিতিতে পুত্রবধু বাপের বাড়ি চলে যায় বলে জানান আভিযোগকারী। অপরদিকে উপজেলার চুনতি হাজিরাস্তা জে.এম সিদকার পাড়া এলাকার নুরুল আবছারেরর মেয়ে আধুনগর হাজির পাড়া এলাকার সরওয়ার কামাল রিনির স্ত্রী আফরিন সোলতানা (২২) যৌতুক মারধরের অভিযোগ এনে জনকে অভিযুক্ত করে লোহাগাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযুক্তরা হলেন, তার স্বামী সরওয়ার কামাল রণি(৩০), শ্বশুর আনোয়ার হোসেন(৬২) শ্বাশুড়ি সাজেদা বেগম (৪৮) ব্যাপারে আনোয়ার হোমেন বলেন, ছেলে ছেলের বউ আলাদা ঘরে থাকেন। ঘটনারদিন রাতে তারা উভয়জন ঝগড়ার আওয়াজ শুনে আমি বাড়ি থেকে বের হয়। কিছুই বুঝে উঠার আগে ছেলের শ্বশুর বাড়ির লোকজন অভিযুক্তর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে আমি কোমড়ের নিচে পিটে ফুলা জখমের আঘাতপ্রাপ্ত হয়। ছেলের শালা রাকিব তাকে গাছের বাটাম দিয়ে আঘাত করেছে বলেও জানান তিনি। সরওয়ার কামাল রণি বলেন, স্ত্রীর জন্ত্রনায় দীর্ঘদিন থেকে অতিষ্ট। ঘটনারদিন অহেতুক তুচ্চ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শ্বশুর বাড়ির লোকজন এসে আমার পরিবারের উপর হামালা চালায়। আফরিন সোলতানা বলেন, আলাদা ঘরে আলাদা থেকে শান্তিতে থাকা দেখে শ্বশুর-শ্বাশুড়ি কথা শুনে আমার স্বামী অহেতুক ভাবে যৌতুকে টাকা দাবী করে আমাকে মারধর করে। নুরুল আবছার বলেন, মেয়েকে যৌতুকের দাবী করে এর আগেও কয়েকবার মারধর করে। ঘটনারদিনও যৌতুকের দাবীতে মারধরের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মেয়েকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল মালেক বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল গিয়ে জানতে পারলাম মারামারির ঘটনা ঘটে। তবে কেন ঘটেছে জানিনা। তিনি আরো বলেন, রণির স্ত্রী মেয়েটি খুবই শান্ত। ঘটনাটি খুবই দুঃখ জনক। চুনতি পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই ছিদ্দিক বলেন, রোববার আধুনগর হাজি পাড়ায় রাতে মারামারি ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। লোহাগাড়া থানার ডিউটি অফিসার মো: দেলোয়ার হোসেন বলেন, ওই ঘটনায় থানিয় দুটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তকে তদন্ত করে থানা পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য