সমুদ্র সৈকতের প্লাস্টিক বোতল পলিথিন বর্জ্য পরিষ্কার করলো পুলিশ

নিউজ ডেস্কঃ
পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় সমুদ্র সৈকতের ৮ কিলোমিটার এলাকার প্লাস্টিকের বোতল, বিভিন্ন পলিথিন ও প্লাস্টিক বর্জ্য পরিষ্কার করেছেন জেলা পুলিশের খেলোয়াড় দলের সদস্যরা। এছাড়াও ময়লা ফেলার জন্য জেলা পুলিশের উদ্যোগে সৈকতের বিভিন্ন স্থানে শতাধিক ডাস্টবিন স্থাপন করা হয়েছে। 

শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। 

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) শেখ বিল্লাল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কলাপাড়া সার্কেল) আহমেদ আলী, সহকারী পুলিশ সুপার মো. ফেরদৌসী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান জানান, সাগরকন্যা কুয়াকাটা থেকে সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত উপভোগ করা যায়। মহিপুরের লতাচাপলী ইউনিয়নের ধূলাসার গ্রামের (সর্ব দক্ষিণস্থ গ্রাম) গঙ্গামতি থেকে সূর্যোদয় উপভোগ করা যায়। সূর্যোদয় উপভোগের এ মনোরম স্থানে দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় আমরা যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা প্রত্যক্ষ করেছি। এতে দেশি ও বিদেশি পর্যটকদের সমুদ্র সৈকত সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা পোষণ করেন। বিদেশি পর্যটকরা আমাদের পর্যটন শিল্পের উন্নয়ন ও বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। 

তিনি আরও জানান, পুলিশের দায়িত্ব ও কর্তব্য হচ্ছে আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ তথা অপরাধ দমন, প্রতিরোধ এবং অপরাধীকে আইনের আওতায় এনে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা। তারপরও সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে জেলা পুলিশ সমুদ্র সৈকত এলাকায় পর্যটকদের নিরাপত্তা বিধানের পাশাপাশি ওই স্থানটি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার উদ্যোগ নিয়েছে। এতে জেলা পুলিশের খেলোয়াড় দলের সদস্যরা ব্যাপক সাড়া দিয়েছেন। 

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান বলেন, সবাই যাতে তাদের ব্যবহৃত ময়লা নির্দিষ্ট জায়গায় রাখতে পারে সেজন্য আমরা পর্যাপ্ত সংখ্যক ডাস্টবিন বক্স স্থাপন করেছি। তিনি সৈকত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য