দিনাজপুরের মাটিতে বিশ্বের সবধরনের কৃষি পণ্য উৎপাদন ফলানো সম্ভব- বীরগঞ্জে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক


মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ 

কৃষিমন্ত্রী বীরমুক্তিযোদ্ধা ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি বলেন, সারাবিশ্বে যতরকমের কৃষি পন্য উৎপাদন হয় তা সবই দিনাজপুরের মাটিতে ফলানো সম্ভব। এ এলাকার মাটি উর্বতার কারনে তা ফলন হবেও দিগুন। প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সরকার আপনাদের কম মূল্যে সার দিয়েছে, একসময় ডিএপি সার ৯০ টাকা ছিল, বর্তমানে এই সার মাত্র ১২ টাকা। পৃথিবীর কোথাও ১২ টাকায় ডিএপি সার পাওয়া সম্ভব নয়, এটি শুধু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশে সম্ভব, তিনি একজন কৃষকদরদি মানুষ। 

তার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষক শ্রমিকের অকৃত্রিম বন্ধু,  আমরা দেখি তার রাজনৈতিক সারাটি জীবন জুড়ে ছিল কৃষক আর কৃষি কল্যাণ ও কৃষির উন্নতি। আজকে বঙ্গবন্ধুর কন্যা পিতার স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করছেন, প্রথমে তিনি সার বীজ কম দামে দিয়েছে, ঋণ দিয়েছে, সেচের ব্যবস্থা করেছে, বিদ্যুৎ দিয়েছে গ্রামে গ্রামে, তারপরও কৃষক লাভবান হতে পারে না, কারণ লেভার পাওয়া যায় না। তাই তিনি লেভারের খরচ কমানোর জন্য ৫০ ভাগ প্রণোদনা দিচ্ছে। একটা মেশিনের মূল্য ২৮লক্ষ টাকা, সরকার দিচ্ছে আপনাদের ১৪ লক্ষ টাকা।  বাংলাদেশের দ্রুত অর্থনৈতিক উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় এক গুরুত্বপুর্ন অধ্যায়ের নাম কৃষি। উৎপাদনশীলতা, আয় বৃদ্ধি এবং গ্রামীণ এলাকায় কর্মস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে আমাদের বিশাল জনগোষ্ঠীর সমৃদ্ধির জন্য কৃষির গুরুত্বপুর্ন ভূমিকা রয়েছে। 

তিনি আরোও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ দিয়েছেন বাংলাদেশের এক ইঞ্চি জমিও যেন অনাবাদি না থাকে। আমাদের কৃষি উৎপাদন আরও বাড়াতে হবে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও শ্রমিক সংকট মোকাবেলায় কৃষি যান্ত্রিকীকরণের বিকল্প নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে রুপকল্প ২০২১ এর ধারাবাহিকতায় টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য মাত্রা ২০৩০ , ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মানের প্রত্যয়ে কৃষি সেক্টরে অর্জনের এই ধারা অব্যাহত রাখার জন্য জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার আহবান জানান। সোমবার (১৫ মার্চ) বিকেলে দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার ৫নং সুজালপুর ইউনিয়নের শীতলাই গ্রামে ৫০ একর জমিতে সমালয় চাষের প্লট পরিদর্শন ও আবেদিন ইকুইপমেন্ট লিমিটেডের জ্বালানি সাশ্রয়ী উন্নতমানের প্রযুক্তি জাপানি কুবোতা হেড ফিডিং কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন পরিদর্শন শেষে ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে কৃষি প্রণোদনা কমর্সূচীর আওতায় বাস্তবায়িত ৫০ একর জমিতে সমালয় ব্লকের হাইব্রিড জাতের বোরো ধান চাষীদের সাথে মতবিনিময় সভায় সাধারণ কৃষক ও সমালয় চাষীদের উদ্দেশ্যে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মাননীয় কৃষি মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা কৃষিবিদ ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক এমপি এসব কথা বলেন। 

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ আসাদুল্লাহ এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের মাননীয় হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি, দিনাজপুর -১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ মেসবাহুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকী, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বিপিএম, পিপিএম (বার),  জেলা আ.লীগের সাধারন সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী, সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আমিনুল ইসলাম, দিনাজপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মোঃ তৌহিদুল ইকবাল প্রমুখ।  

মতবিনিময় শেষে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল টেকনোলজি প্রোগ্রাম ফেজ প্রজেক্ট (এনএটিপি-২) অর্থায়নে শীতলাই গ্রামে ২০২০-২০২১ অর্থবছরে ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল টেকনোলজি প্রোগ্রাম ফেজ-২ (এনএটিপি-২) প্রকল্পের এআইএফ-৩ ম্যাচিং গ্রান্ট-প্রকল্পের আওতায় চৌপকুরিয়া গ্রামতলী এনএটিপিসি আই জি সমবায় সমিতি লিঃ (ফসল) এর সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের হাতে  পিকআপ গাড়ীর চাবি তুলে দেন ও উপজেলা জাতীয় যুব শ্রমিক লীগের অর্থায়নে স্থানীয় কৃষকদের মাঝে  বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষের চারা  বিতরণ করেন প্রধান অতিথি কৃষিমন্ত্রী কৃষিবিদ ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি। 

এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল কাদের, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ ডালিম সরকার, বীরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল মতিন প্রধান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবীদ আবু রেজা মো. আসাদুরজ্জামান, বীরগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মোস্তাফিজার রহমান, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ, ইউপি সদস্য, বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া কর্মী, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সমালয় চাষি সহ দলমত নির্বিশেষে সকলে উপস্থিত ছিলেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য