কমছেনা চাল তেলের দাম পঞ্চগড়ে রমজানের আগেই মুরগীর বাজার চড়া


মোঃ কামরুল ইসলাম কামু ,পঞ্চগড়ঃ
 

বাজার নিয়ে বিড়ম্বনার শেষ নেই‘ সবজিতে স্বস্তি তো চাল তেলে অস্বস্তি। সব মিলিয়ে সাধারণ মানুষ বিপাকে। গত কয়েকমাস আগে অতিবৃষ্টিতে বাজারে গিয়ে নাজেহাল হতে হয় মানুষকে। ৮০ টাকা থেকে ১০০ টাকা দরে সবজি খেতে হয়। এবার চলছে চালে আর তেলে অস্বস্তি। হু হু করে বাড়ছে তেলের দাম এক লিটার সোয়াবিনে বেড়েছে ৪০ টাকা থেকে ৫০ টাকা। খোলা সেয়াবিনের কদর ছিলো কম ‘ সেই সোয়াবিন এখন প্রতি কেজি ১২০ টাকায় দাঁড়ায় ।

এদিকে শুক্ররবার (২৭ ফেব্রয়ারী) পঞ্চগড় বাজারে গিয়ে অনেকে হতভম্ব হয়ে পড়ে। গত সপ্তাহে যে সোনালী মুরগী ছিলো ২৫০ টাকা তা ‘ আজ ২৮০ টাকা প্রতি কেজি।অথচ এই সোনালী মুরগী ছিলো গত মাস খানেক আগে ১৮০ টাকা কেজি। বয়লার বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা প্রতি কেজি। যা ছিলো ১১০ পরে ১২০ টাকা। এখন রমজান আসছে ‘ দেখে খামারিরা সরবরাহ কমে দিয়ে দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। কারন রমজানে দাম ও চাহিদা থাকবে। বড় কক মুরগী বিক্রি হচ্ছে ২৫০ টাকা। দেশী ৩৫০ টাকা প্রতি কেজি।

পঞ্চগড় বাজারের মুরগী ব্যবসায়ী নুর নবী জানান ‘ সরবরাহ কম তাই বয়লার বিক্রি করছি ১৫০ টাকা। রবিউল ইসলাম জানান ‘ সোনালী মুরগীর প্রতি কেজি বিক্রি করছি ২৮০ টাকা প্রতি কেজি। তিনিও জানান সরবরাহ কমে গেছে। সব মুরগী ব্যবসায়ীদের একই কথা সরবাহ কম’। র্স্বণপারি বিক্রি হচ্ছে ৫০ কেজির বস্তা ‘২৪০০ টাকা থেকে ২৩৮০ টাকা। যা দুই মাস আগে ছিলো ২০০০ হাজার টাকা। আঠাইশ ছিলো ২৫০০ টাকা । এখন ২৬০০ ও ২৭০০ টাকা থেকে ২৯০০ টাকা। মিনিকেট ছিলো ২৫০০ টাকা থেকে ২৪০০ টাকা । এখন ৩০০০ টাকা থেকে ৩১০০ টাকা।

পঞ্চগড় শহরের বিশ্ষ্টি চাল ব্যবসায়ী আব্দুল বারেক বাচ্চ বলেন ‘ মিল গেটে চালের দাম বেশী। ভারতীয় চাল পোর্টে প্রতি কেজি পড়ে ৪১ টাকা ৫০ পয়সা। প্রতি বস্তায় খরচ আছে ৩০ টাকা। বাজারে গুঠি চাল বিক্রি হচ্ছে ৪২ টাকা থেকে ৪৩ টাকা প্রতি কেজি। চালের বাজারে গিয়ে দেখা যায় সব চালের ৫০ কেজির বস্তায় বেড়েছে ৫০ টাকা। চাল ব্যবসায়ী অজিজার জানান ‘ কমতে গিয়ে এখন বাড়তির দিকে।গালামাল ব্যবসায়ী হাসিবুল ইসলাম বলেন‘ খোলা সোয়াবিনের দাম ছিলো প্রতি কেজি ১২৩ টাকা লিটার আজ ১১৮ টাকা । মসুর ডাল ১০৫ টাকা থেকে ৭০ টাকা প্রতি কেজি। বোতলজাত সোয়াবিন  ২ লিটার বোতল ২৬০ টাকা থেকে ২৭০ টাকা।

সবজির বাজারে গিয়ে দেখা যায় পেয়াঁজের বাজার স্থির । প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৩০ টাকায় থেমে আছে। তবে কদিন আগে ২৫ টাকাতে ও পেঁয়াজ পাওয়া গেছে। একজন পেঁয়াজ ব্যবসায়ী বলেন ‘ এখনকার পেঁয়াজ শুকনো তাই ৩০ টাকা দরে বিক্রি করতে হচ্ছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য