জলঢাকায় গাছ কর্তন নিয়োগ বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে


আব্দুল মালেক, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

নিয়ম অনুযায়ী সরকারি ভাবে লাগানো গাছপালা বা যে কোন পরিতক্ত সম্পদ দরপত্রের মাধ্যমে নিলামে বিক্রি করার কথা থাকলেও নিয়ম না মেনে নিজের ক্ষমতা বলে ইউনিয়ন পরিষদের গাছ কেটে আবারো আলোচনা ও সমালোচনায় পড়েছে এক ইউপি চেয়ারম্যান। আর এই নিয়ম না মেনে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরের গাছ কাটার অভিযোগ উঠেছে নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার মীরগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির হুকুম আলীর বিরুদ্ধে। 

শুধু গাছ কাটায় নয়, এই চেয়ারম্যান ধর্মীয় এক আলীম মাদরাসার টানা নয় বছর সভাপতি থাকাকালীন ও-ই প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ বাণিজ্য করে টাকা আত্মসাৎ সহ মোটা অংকের চাঁদা দাবি করেছেন বলেও অভিযোগ স্থানীয়দের। ২০১৬ সালে ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদন্দিতা করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে বেপরোয়া হন তিনি। 

পাঠানপাড়া বাজারের ব্যাবসায়ী এস এম মাসুদ রানার মটরসাইকেল ভাংচুর ও ছিনকাইয়ের মত ঘটনাও ঘটান তিনি। এ ঘটনায় ওই ব্যবসায়ী নীলফামারী বিজ্ঞ আদালতে মামলা করেন, যার নং-জিআর ১৫০/১৭। শুধু তাই নয় কয়েক বছর আগে পরিষদের এক মহিলা সদস্যকে নিয়ে উধাও ছিলেন বেশ কয়েকদিন। এছাড়াও মাস দুয়েক আগে পাঠানপাড়া এম ইউ আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ্যকে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদাও দাবি করেন তিনি। 

এই ঘটনায় ওই প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ্য জলঢাকা থানায় ডাইরী করতে গিয়েও করতে পারেননি চেয়ারম্যানের ভয়ে। গোপন সূত্রে জানা যায়, ওই প্রতিষ্ঠানে সভাপতি থাকাকালীন ০৯-০৬-২০১০ ইং তারিখে সমাজ বিজ্ঞান শাখার শূণ্য পদে শিক্ষক নিয়োগ দেন তিনি। জাল ও ভুয়া নিবন্ধন তৈরি করে অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে নিয়োগ দিয়ে হাতিয়ে নিয়েছে লক্ষ লক্ষ টাকা। বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যায়ন কতৃপক্ষ ঢাকা থেকে গত ২৪-১২-২০২০ইং তারিখে এনটিআরসিএ সহকারী পরিচালক তাজুল ইসলামের স্বাক্ষরিত একটি চিঠি ওয়েব সাইটে দেখা যায়, যা প্রতিষ্ঠান প্রধানকে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার বিষয়টিও চিঠিতে দেখা যায়। 

প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ  মাওলানা রুহুল আমিন আজাদ জানান, চাঁদাদাবির বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী স্যার ও বর্তমান সভাপতিকে জানিয়েছি। নিবন্ধনের বিষয়ে তিনি বলেন, ওয়েব সাইটে দেখা গেছে, এখনো হাতে পাইনি। চিঠি হাতে পেলে সবার সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো। নিবন্ধন জালিযাতির বিষয়ে সমাজ-বিজ্ঞান শিক্ষক জিয়াউর রহমান জিয়া চৌধুরী মুঠোফোনে বলেন, আমার ষড়যন্ত্র চলছে, আর যারা আমাকে নিয়োগ দিয়েছে তাঁরা কি দেখেছেন, এছাড়া আমি কিছুই বলতে পারবো না।

এব্যাপারে ওই প্রতিষ্ঠানের বর্তমান সভাপতি আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের ত্রান ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন পাভেল মুঠো ফোনে জানান, আমাকে সভাপতি করেছে আমি জানিনা, পরে জানতে পাইলাম। তবে বিষয় গুলো যেনেছি সময়মত ব্যবস্থা নিবো আইনি ব্যবষ্থা নেয়া হবে বলে জানান উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার চষ্ণল কুমার ভৌমিক ।  

নিয়ম না মেনে নিজেস্ব ক্ষমতার বলে এবার ইউনিয়ন পরিষদের জীবন্ত কয়েকটি গাছ কেটে আলোচনায় আসলেন ওই চেয়ারম্যান। মঙ্গলবার সরেজমিনে গেলে দেখা যায়, পরিষদের সামনে তরতাজা তিনটি গাছের গোড়ালী যা মাটি দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে। চেয়ারম্যানের ভয়ে নাম না বলতে ইচ্ছুক স্থানীয় কয়েকজন বলেন, প্রশাসনের অনুমতি নেওয়া আছে এমন কথা বলে কয়েক একদিন আগে চেয়ারম্যান তার লোকজন দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরের ভিতরে থাকা বিভিন্ন প্রজাতির তিনটি গাছ কেটেছেন। 

আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে ইউপি নির্বাচনের নৌকার বিরুদ্ধে প্রতিদন্দিতা করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এখন নৌকার প্রার্থীতার জন্য বিভিন্ন নেতার পিছনে ধরনা দিয়েছেন। কবে অনেক নেতারা জানিয়েছেন নৌকার বাইওে কেউ গেলে মনোণয়ন পাওয়ার কোন আশাই নেই।   

ইউপি সচিব খাইরুল আজাদের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, আপনারা চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলেন, আমি কিছুই বলতে পারবো না। তবে চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির হুকুম আলী মুঠোফোনে জানান, পরিষদের সবার মতামত নিয়ে গাছ কাটা হয়েছে। তিনি বলেন গাছ গুলো জামে মসজিদের ঢালাইয়ের কাজে লাগাতে দান করা হয়েছে। তবে নিবন্ধনের বিষয়টি স্বীকার করেছেন। 

বিষয়টি নিলাম কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান মুঠোফোনে জানান, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য