দেবীগঞ্জে এক ইউপি চেয়ারম্যান ও তার ছেলে সহ তিনজনের হাজতবাস


মো. কামরুল ইসলাম কামু, পঞ্চগড়ঃ
 

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার উপজেলা চেংঠী হাজরাডাঙ্গা ইউনিয়নের এক ইউপি সদস্যের দায়ের করা মামলায় উক্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত।মামলাও আদালত সূত্রে জানা যায় ‘ মারধরের অভিযোগ এনে চেংঠী হাজরাডাঙ্গা ইউনিয়নের ৪নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সহিদুল ইসলাম চেয়ারম্যান অনিল চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন। ওই মামলায় মঙ্গলবার দুপুরে পঞ্চগড় আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে আদালত চেয়ারম্যান অনিলের জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

চেয়ারম্যানের সাথে ওই মামলার আসামি চেয়ারম্যানের ছেলে মানিক চন্দ্র রায় (৩৫) ও তাদের সহযোগী কানাই চন্দ্র সেনকেও (৩৮) জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। আদালত সূত্রে জানা যায়, গত ২৫ জুলাই চেংঠী হাজরাডাঙ্গা ইউনিয়নের নতুনহাট বাজারে ইউপি চেয়ারম্যান অনিল চন্দ্র রায়ের চেম্বারে স্থানীয় একটি বাজারের হাটশেড নির্মাণ নিয়ে চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য সহিদুল ইসলাম তর্কে জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে চেয়ারম্যান, তার ছেলে ও সহযোগী ওই ইউপি সদস্যকে মারধর করে। 

এ সময় জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন ওই ইউপি সদস্য। পরে স্থানীয়রা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে দেবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে তাকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে গত ১৮ আগস্ট ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিনজনকে আসামি করে আদালতে একটি মামলা করেন। আদালত মামলাটি পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেন। 

গত ৯ ডিসেম্বর পিবিআই মামলার তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করে। আদালত আসামিদের ২২ ডিসেম্বর আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন। এরপর মঙ্গলবার তারা আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য