প্রখ্যাত শ্রমিকনেতা ও সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক পৌর মেয়র আখতার হোসেন বাদলের ইন্তেকাল

মিজানুর রহমান মিলন সৈয়দপুরঃ

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি  সাবেক পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আখতার হোসেন বাদল (৬৫) আজ শনিবার বেলা ১টায় রংপুর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি... রাজিউন)।  

তিনি গত ৮ ডিসেম্বর থেকে শ্বাষকষ্ট, ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত হয়ে রংপুর সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে গতকাল শুক্রবার রাতে তাকে রংপুর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, অবুঝ দুই ছেলে ও এক শিশু কন্যা, ভাইবোন, আত্মীয়স্বজন, বন্ধুবান্ধব, শুভাকাঙ্খীসহ বহু গুনগ্রাহী রেখেে গেছেন। 

আগামিকাল রবিবার সকাল ১০ টা ও বেলা ১১টায় সৈয়দপুর রেলওয়ে মাঠে  প্রথম ও দ্বিতীয়, সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে দুপুর ১২ টায় তৃতীয় এবং তাঁর গ্রামের বাড়ি নীলফামারী সদরের সোনারায় ইউনিয়নের বড়ুয়া গ্রামে বাদ জোহর মরহুমের চতুর্থ জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। পরে বেড়াকুঠি গ্রামে মরহুমের হাতে প্রতিষ্ঠিত মসজিদের পাশে তাঁকে দাফন করা হবে। 

এদিকে আজ শনিবার দুপুরে মৃত্যুর সংবাদে গোটা শহরে শোকের ছায়া নেমে আসে। তাঁর মৃত্যুতে শহরের অনেক ব্যবসায়ী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে আওয়ামীলীগ কার্যালয়, তাঁর শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যালয় ও নতুন বাবুপাড়ার বাসভবনে ছুঁটে আসেন। একইসাথে দলীয় নেতাকর্মী সমর্থকসহ সর্বস্তরের মানুষও ভীড় জমায় প্রয়াত নেতার বাসভবনে। 

বিকেল সাড়ে ৩টায় মরহুমকে বহনকরা এ্যাম্বুলেন্স তাঁর নতুন বাবুপাড়াস্থ বাসভবনে এলে  পরিবারের সদস্য, নেতাকর্মী সমর্থকসহ অনেকেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। এসময় সেখানে হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। নীলফামারী জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও পৌর মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ,

উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন, সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শওকত চৌধুরীসহ আশে পাশের জেলা উপজেলা  থেকে আসা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ ও  শহর ও ইউনিয়নগুলো থেকেও শত শত দলীয় নেতাকর্মীরাসহ সর্বস্তরের বিপুল সংখ্যক মানুষ তাকে এক নজর দেখার জন্য তাঁর বাসভবনে ভীড় করেন। 

সৈয়দপুরের জনপ্রিয় ক্লীন ইমেজের রাজনীতিক ও পরিবহন সেক্টরের প্রখ্যাত শ্রমিকনেতা আখতার হোসেন বাদলের মৃত্যুতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী মো. শাজাহান খান এমপি,  নীলফামারী -২ আসনের সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নুর, নীলফামারী -৪  আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মো. আহসান আদেলুর রহমান আদেল, 

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য রাবেয়া আলীম,  নীলফামারী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মমতাজুল হক,নীলফামারী জেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদ মাহমুদ, সৈয়দপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন, ভাইস চেয়ারম্যান মো.আজমল হোসেন, নারী ভাইস চেয়ারম্যান সানজিদা বেগম লাকী, 

সৈয়দপুর পৌর মেয়র অধ্যক্ষ মো. আমজাদ হোসেন সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মহসিনুল হক মহসিন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি  মো. রফিকুল ইসলাম বাবু, সাধারণ সম্পাদক মো. মোজাম্মেল হক,আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যক্ষ সাখাওয়াৎ হোসেন খোকন, একেএম রাশেদুজ্জামান রাশেদ, নীলফামারী জেলা বাস-

মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মো. আলতাফ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মমতাজ আলী, উপজেলা যুব লীগের আহ্বায়ক দিলনেওয়াজ খানসহ আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী ছাড়াও সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ শোক প্রকাশ করে  শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন। প্রসঙ্গত, মরহুম আখতার হোসেন বাদল জীবদ্দশায় সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের

দায়িত্ব পালন করা ছাড়াও রংপুর বিভাগীয় কমিটির সভাপতি এবং নীলফামারী জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ছিলেন। এছাড়াও তিনি সৈয়দপুর শহরের ঐহিত্যবাহী পূবালী স্কাউটস্ বিজ্ঞান ক্লাবের সভাপতি, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের উপদেষ্টা ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য