পঞ্চগড়ে একদিনের ব্যবধানে পেঁয়াজে কেজিতে বেড়েছে ৫০ টাকা থেকে ৬০ টাকা

মোঃ কামরুল ইসলাম কামু পঞ্চগড়ঃ 
পঞ্চগড়ে পেয়াঁজের বাজার চড়া। একদিনের ব্যবধানে প্রতি এক কেজি পেয়াঁজে বেড়েছে ৫০ টাকা থেকে ৬০ টাকা। পঞ্চগড়ের ব্যবসায়িদেরে দাবি ভারত থেকে আমদানি করা পেয়াঁজ বেশী দামে কিনতে হচ্ছে। 

দিনাজপুরের হিলিতে আমদানিকারকরা মঙ্গলবার পেয়াঁজের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। খুচরা ও পাইকারি বাজারে ৫/১০ টাকা কম বেশীতে পেয়াঁজ বিক্রি হচ্ছে। হিলি দিয়ে এখন আর পেয়াঁজ আসছেনা’। পেয়াঁজের দর মানবসৃষ্ট তাই সাধারন মানুষ পূর্বের অভিজ্ঞতায় বাজারে পেয়াঁজ কিনতে ছুটছে। ভরসা নেই ’কে সংকট কাটাবে পেয়াঁজের বাজারের। কে দেখবে তাদের কষ্ট। তাই পেয়াঁজ কিনে রাখতে বাজারে ছুটছে মানুষ ভয় নিয়ে এই বুঝি পেয়াঁজের দাম বাড়লো’।

পঞ্চগড় সদর উপজেলার মলানী পাড়ার বাসিন্দা মো. দেলোয়ার হোসেন পেঁয়াজ কিনতে এসেছেন‘ তিনি খুচরা দোকানে মন দিয়ে মাঝারি সাইজের পেয়াঁজ বেছে বেছে নিচ্ছিলেন। তাকে জিজ্ঞাসা করতে একটু মুচকি হেসে বললেন ‘ আমরা লোক কম তো ‘তাই ৫০০ গ্রাম পেয়াঁজ নিলাম। পাইকারি ব্যবসায়ি মো. আবুল খায়ের জানান আজ (মঙ্গলবার) হিলি থেকে প্রকার ভেদে ৬৫ টাকা থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে পেয়াঁজ কিনতে হয়েছে। আমরা বিক্রি করছি ৭০ টাকা থেকে ৭৫ টাকা কেজি দরে।’

খুচরা ব্যবসায়ি কফিল উদ্দীন জানান ‘ দেশী পেয়াঁজ ৮৫ টাকা থেকে৯০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি। তিনি আরো বলেন‘ বগুড়ায় পেয়াঁজ ৭০ টাকা থেকে ৮০ টাকায় কিনতে হয়েছে’। খুচরা বিক্রি করছি দেমী ৯০ টাকা ও এলসি ৮০ টাকা।’

পঞ্চগড় সদর উপজেলার পাটোয়ারি পাড়ার বাসিন্দা স্থানিয় একটি মাদ্রাসার প্রভাষক মো. সুলতান মাহমুদ তিনি খুব মনযোগি হয়ে পেঁয়াজ বেছে বেছে নিচ্ছিলেন ‘ যেনো পেয়াঁজ নিয়ে জালা। কি পেয়াঁজ নিচ্ছেন এমন কথায় ‘ দাঁিড়য়ে বললেন ‘ জ¦ী ভাই’। কি করার চার কেজি পেয়াঁজ নেই।’ যদি বাজার আরো বাড়ে বলা কি যায়।’

ব্যবসায়ি খলিলুর রহমান বলেন ‘ দেশী পেঁয়াজ এখন খুচরা  ৯০ টাকা ও ভারতীয় পেয়াঁজ ৮০ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে’। তবে আমদানির উপড় নির্ভর করছে পেয়াঁজের বাজার।অপর খুচরা ব্যবসায়ি কালু বলেন ‘ আমদানি না হলে ‘ দাম আরো বাড়তে পারে’। ঠিক বলা যাচ্ছেনা’ কি হয়। এদিকে গতকাল সোমবার পেয়াঁজের বাজার ছিলো স্বাভাবিক।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য