সৈয়দপুরে চুরি যাওয়া ট্রাক্টর চিলমারী থেকে উদ্ধার, ক্রেতা বিক্রেতা গ্রেফতার

মিজানুর রহমান মিলন, স্টাফ রিপোর্টারঃ
সৈয়দপুর থেকে চুরি যাওয়া সোনালিকা-ডি১-৩৫ মডেলের ট্রাক্টরটি কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলার কাঁচকল বাজার থেকে উদ্ধার করেছে সৈয়দপুর থানা পুলিশ। চুরি হওয়ার ২২ দিনের মাথায়  গতকাল শনিবার গভীর রাতে ওই ট্রাক্টর উদ্ধার করা হয়।  

এ সময় চিলমারী উপজেলার  কুস্টারী এলাকার মৃত তসলিম উদ্দিনের পুত্র চোরাই ট্রাক্টর ক্রেতা মো. রঞ্জু (৩২) ও আজ রবিবার দুপুরে নীলফামারী সদর উপজেলার বাগানবাড়ি (জাদুরহাট) এলাকার মৃত জহিমুদ্দিনের পুত্র ট্রাক্টর চোর সুজনকে (১৯) রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলার চৌরাস্তা মোড় থেকে গ্রেফতার করা হয়। 

আজ বিকেলে পুলিশ গ্রেফতার দু আসামিকে আদালতে প্রেরণ করেছে। এরআগে চুরির এ ঘটনায় অপর আসামি বুলবুল ওরফে শান্তকে (২৩) গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ জানায়,গত ২২ আগস্ট সন্ধ্যায় সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর বকসাপাড়ার মো. বেলাল হোসেনের(৫০) রায়হান ইন্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপে সোনালিকা ডি১-৩৫ মডেলের ট্রাক্টরটি মেরামতের জন্য নিয়ে যায় কামারপুকুর ইউনিয়নের দলুয়া মুন্সিপাড়া এলাকার ট্রাক্টর মালিক আতাউর রহমান (৪৫) ও ড্রাইভার রেজাউল (৩৫)। 

কিন্তু সেখানে  অন্যান্য গাড়ি মেরামতের জন্য অপেক্ষমান থাকায় ট্রাক্টরটি পরে মেরামত করা হবে গ্যারেজ মালিক জানায়। এসময় তাঁর কথামত ট্রাক্টরটি সেখানেই রেখে চলে আসেন তাঁরা। কিন্তু ওইদিন রাতের কোন এক সময় চুরি হয় ট্রাক্টরটি। পরদিন সকালে ট্রাক্টরটি ঠিক করতে গেলে তাঁরা চুরির বিষয়টি জানতে পারেন। পরে ওই গ্যারেজে থাকা সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজে দেখা যায় অজ্ঞাত ৪ জন চোর মোটরসাইকেলে এসে সুকৌশলে ট্রাক্টরটি চুরি করে নিয়ে যায়। 

এ ঘটনায় সৈয়দপুর থানায় মামলা হলে পুলিশ ট্রাক্টর উদ্ধার অভিযান শুরু করে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক মো. সাহিদুর রহমান সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজের সুত্র ধরে প্রথমে চোর শনাক্তের জন্য নীলফামারী জেলাসহ আশেপাশের জেলা উপজেলায় অভিযান চালায়। ওই সময় গ্রেফতার করা হয় বুলবুল ওফে শান্তকে(২৩) গ্রেফতার করে। 

পরে বিভিন্ন সুত্রে তিনি জানতে পারেন চোরেরা কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলার শখের বাজার গোলবাড়ি এলাকায় মৃত তসলিম মেকারের পুত্র রঞ্জু'র কাছে ট্রাক্টরটি বিক্রি করেছে। এমন তথ্য পেয়ে থানার উপ-পরিদর্শক মো. সাহিদুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল শনিবার চিলমারী উপজেলায় যায়। সেখানকার থানা পুলিশের সহযোগিতায় রাত তিনটার দিকে গোলবাড়ি এলাকা থেকে ট্রাক্টর ক্রেতা রঞ্জুকে গ্রেফতার করা হয়। 

পরে তার দেয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী কাঁচকল বাজার এলাকায় লুকিয়ে রাখা ট্রাক্টরটি উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় রঞ্জু জানায় চোর, সুজন, বুলবুল ওরফে শান্তসহ অপর একজনের কাছ থেকে দুই লাখ টাকার বিনিময়ে খরিদ করেছে। পরে তার দেয়া আরেকটি তথ্যে মামলার আসামি সুজনকে আজ রবিবার দুপুরে তারাগঞ্জ বাজারের চৌরাস্তা থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

জানতে চাইলে সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো.  আবুল হাসনাত খান চুরি যাওয়া ট্রাক্টর উদ্ধার ও জড়িতদের গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন গ্রেফতারকৃতরা আন্তজেলা চোর দলের সক্রিয় সদস্য। ট্রাক্টর চুরির সাথে আরও একজন জড়িত রয়েছে। তাঁকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে। তবে গ্রেফতারের স্বার্থে তাঁর নাম প্রকাশ করেননি তিনি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য