দুই মাসের বিয়ে',পাঁচ অন্তঃসত্ত্বা; আবশেষে অন্য ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ

হাসানুজ্জামান হাসান,লালমনিরহাটঃ  
লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের লতাবর গ্রামের দুলাল হোসেনের মেয়ের সাথে দুই লক্ষ বিশ হাজার টাকা দেনমোহরে একই উপজেলার রহিম উদ্দিনের ছেলে পারভেজ আলীর গত দুই মাস আগে বিবাহ সম্পুর্ন হয়।

বিয়ের দুই মাস পর স্বামী পারভেজ আলী তার স্ত্রীর চালচলনে সন্দেহ হলে পরীক্ষার জন্য ডাক্তারের নিকট নিয়ে যান। ডাক্তার পরীক্ষা শেষে বলেন তার স্ত্রী ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। স্বামী পারভেজ আলী এমন কথা শুনে তার স্ত্রীর বাড়িতে খবর দেন।

এ বিষয়ে পারভেজ আলীর নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, আমার বিয়ের বয়স দুই মাস অথচ আমার স্ত্রী ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। ঘটনাটি আমি কিংবা আমার পরিবারের কেউ মেনে নিতে না পারায় গত ২৭ আগস্ট ৭ নং চলবলা ইউনিয়নের কাজী অফিসে গিয়ে উভয় পক্ষের সম্মতিক্রমে দেনমোহর খোরপোষ বাবদ ২৫ হাজার টাকা বুঝিয়া দিয়া তাকে তালাক প্রদান করি।

ডিভোজের পর মেয়েকে বাড়ীতে নিয়ে এসে এক সপ্তাহ পর মেয়ের ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বার বিষয়কে কেন্দ্র করে তার মা রাশিদা বেগম বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাত ৯টার দিকে বাদী হয়ে একই এলাকার আক্তার হোসেনসহ পাঁচজনকে আসামি করে কালীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয়ে আক্তার হোসেনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগের বিষয়টি অস্বীকার করেন। আক্তার হোসেনের ভাই আকরাম হোসেন জানান, ‘আমাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। তিনি আরো জানান, ‘ আমার ভাইয়ের সাথে যদি সর্ম্পকই ছিল, তা’হলে অন্যত্র বিয়ে দেয়ার আগে কেন অভিযোগ করেনি।’

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরজু মো. সাজ্জাদ হোসেন অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য