বাবার ভেঙ্গে যাওয়া স্বপ্ন যেনো আবার পূরন হবে ‘ পঞ্চগড়ে মেয়ের বৃত্তির টাকায় কেনা চুরি যাওয়া গরু উদ্ধার

মোঃ কামরুল ইসলাম কামু পঞ্চগড়ঃ 
দিন মুজুর বাবার হার ভাঙ্গা পরিশ্রমে সংসারে বেড়ে ওঠ চার কন্যা সন্তান মেধাবি। কেউ পড়ে মেডিকেলে, কেউ প্যারামেডিকেলে কেউবা ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে। অভাবে সংসারে বাবার অক্লান্ত পরিশ্রমে পাশে দাড়াঁয় ওই কণ্যা সন্তানরাই। 

বাবাকে প্রায় চার পাঁচ বছর আগে তার বড় দুই মেয়ে আফসানা ও রুমানা নিজেদের শিক্ষাবৃত্তি ও টিউশনির টাকা জমিয়ে তার সাথে পরিবারের কিছু টাকা মিলিয়ে বাবাকে চারটি ছোট ছোট গরু কিনে দেয়। বাবা অনিসুর দিন মজুরের পাশাপাশি ওই  টাকায় কেনা গরুগুলো লালন -পালন করে। সন্তানদের ভবিষ্যতের চিন্তা করে নিজের কথা না ভেবে ‘ রাত-দিন খেটে গরু চারটিকে বড় করে তোলে বাবা আনিসুর। 

কথায় আছে ‘ চোর মোনেনা ধর্মের কাহিনী ’ এমন প্রবাদ সত্য হয়ে যায়। হঠাৎ’ গত ১৮ আগস্ট দিবাগত রাতে চারটি গরুই চুরি করে নিয়ে যায় চোরের দল।এতে দিশেহারা হয়ে পড়ে বাবা। এঘটনার পরদিন পঞ্চগড় সদর থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামী করে একটি মামলা করা হয়। মামলার পর থেকেই পুলিশ গরুগুলো উদ্ধারের জন্য অভিযানে নামে।

এমন ঘটনায় পঞ্চগড় পুলিশ সুপার কৌশল অবলম্বন করে পুলিশ সদস্যদের মাঠে সক্রিয় রাখে। এরপর বিভিন্ন সোর্স ব্যবহার করে বুধবার(২৬আগষ্ট) বিকেলে পঞ্চগড় সদর উপজেলার অমরখানা ইউনিয়নের বিরাজোত এলাকা থেকে তিনটি গরু উদ্ধার করে পঞ্চগড় সদর থানা পুলিশ। পুলিশ জানায় ‘গরুগুলো একটি গাছের সাথে বাঁধা ছিলো। 

তবে একটি গরু এখনো পাওয়া যায়নি। জানা যায়, আনিসুর রহমানের বাড়ি পঞ্চগড় সদর উপজেলার কামাতকাজলদিঘী ইউনিয়নের ঘটবর গ্রামে। পেশায় দিনমজুর আনিসুরের চার মেয়ে সন্তান। মেয়েরা প্রত্যেকেই মেধাবী।  

পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মে.  আবু আক্কাছ আহমদ বলেন, একটি সংঘবন্ধ গরু চোরের দল গরুগুলো চুরি করে ‘ কিন্তু পুলিশের কড়া নজরদারির কারনে গরুগুলি বিক্রি করতে ব্যর্থ হয় । ‘এ জন্য আমরা চুরি হওয়া তিনটি গরু উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য