মাদক বিরোধী অভিযানে তৎপর কালীগঞ্জ থানা পুলিশ

হাসানুজ্জামান হাসান, লালমনিরহাটঃ  
সম্প্রতি মাদকের অবস্থান জিরো টলারেন্সে নিয়ে আসার লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে দিক নির্দেশনা দিয়েছেন তারই অংশ হিসেবে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ চিরতরে নির্মূল করা হবে।  

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত অঙ্গীকার বাস্তবায়নে লালমনিরহাট জেলা পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানার দিক নির্দেশনায় ও কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরজু মোঃ সাজ্জাদ হোসেনের নেতৃত্বে এসআই তুষার কান্তি রায়, এসআই মহিদুল ইসলামসহ কালীগঞ্জ থানা পুলিশ মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়ে প্রতিনিয়ত নানামুখী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।  

কালীগঞ্জ থানা পুলিশের নিয়মিত অভিযানে উপজেলার গোড়ল ইউনিয়নের লোহাকুচি, ময়নারচড়া, চাকলা হলমোড়, গোড়ল চৌপুতি, বলাইরহাট এবং চন্দ্রপুর ইউনিয়নের চন্দ্রপুর, খামারভাতি, বালাপাড়া, বোতলা, চাপারহাট এই কয়েকটি স্পটে ওসি’র বিশেষ নজরদারির কারণে ইদানিং ওই সব স্পটে কমে গেছে মাদককারবারী ও রংপুর থেকে আগত সেবীদের আনাগোনা। 

কোণঠাসা হয়ে পড়েছে এসব এলাকার মাদক পাচারকারী ও ব্যবসায়ীরা।  আগে মাদক কারবারীদের নির্দিষ্ট স্পট থাকলেও কালীগঞ্জ থানা পুলিশের তৎপরতায় এখন এলাকায় মাদকের নির্দিষ্ট কোন আস্তানা নেই। বহুবার আস্তানা তৈরি করতে চাইলেও পুলিশের বিশেষ নজরদারিতে তারা ব্যর্থ হয়েছে। 

পুলিশের অভিযানে শতাধিক চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও কুখ্যাত দাগী কয়েকজন আসামীকে গ্রেফতার করে তাদেরকে আইনের হাতে সোপর্দ করা হয়েছে। পুলিশের নিয়মিত টহলের কারণে অনেকে মাদক ব্যবসায়ীরা গা ঢাকা দিয়েছে।  

একদিকে মাদক পাচারকারী অন্যদিকে বহনকারী এবং ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দিনরাত চলছে বিশেষ অভিযান। এতে করে কমে আসছে মাদকের সহজলভ্যতা আর জনমনে ফিরছে অনেকটাই স্বস্তি।  

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি জামাল হোসেন খোকন বলেন, এক সময় এ উপজেলায় মাদক ব্যবসায়ীদের সংখ্যা যে হারে বৃদ্ধি পেয়েছিল এতে মানুষ সন্তানদের নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় ছিলেন। 

এমনকি রাতে ভালো করে ঘুমাতেও পারেনি। আগে যেখানে সেখানে দিনদুপুরে মাদক ব্যবসায়ীদের মাদকদ্রব্য বিক্রি করতে দেখা যেতো।  এতে যুব সমাজ ধ্বংসের দিকে ঝুঁকে পড়েছিল। বর্তমানে কালীগঞ্জ থানা পুলিশের ব্যাপক তৎপরতায় মাদক ব্যবসা অনেকাংশে কমে গেছে। বর্তমান মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে এক আতংকের নাম ওসি সাজ্জাদ হোসেন।  

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরজু মোঃ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, জনগণের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে সকলের সহযোগীতায় অল্প সময়ের ভেতরে এই উপজেলাকে মাদক মুক্ত করে গড়ে তুলবো এবং মাদকের সঙ্গে জড়িত কাউকে বিন্দুমাত্র ছাড় দেওয়া হবে না। 

এ উপজেলাকে মাদকমুক্ত করতে কালীগঞ্জ থানা পুলিশের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। পুলিশের এ অভিযানে ইতোমধ্যেই মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতংঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।  

জেলা পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা বলেন, মাদক ব্যবসা বন্ধে জেলা পুলিশ সর্বদা কাজ করে যাচ্ছে। মাদক ব্যবসায়ীরা যে দলেরই হোক না কেন, ছাড় দেয়া হবে না। তিনি অপরাধ দমনে পুলিশকে সহযোগিতা করার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য