ভাতিজার রডের আঘাতে চাচার মৃত্যু বড় ভাইসহ গ্রেফতার-৩

রতন কুমার রায়, স্টাফ রিপোর্টার: 
নীলফামারীর ডোমার উপজেলার গোমনাতী ইউনিয়নে জমি নিয়ে ভাই ভাইয়ের মারামারিতে বিমাতা ছোট ভাইয়ের ছেলের রডের আঘাতে চাচা রুহুল আমীন (৫০) নামে এক জনের মৃত্যু হয়েছে। 

উক্ত ঘটনায় ডোমার থানা ওসি (তদন্ত) বিশ্বদেব রায়, এসআই কমলেশ রায় সঙ্গীয় ফোর্সসহ অভিযান চালিয়ে রংপুর শহরে বড়ভাইসহ ৩ জনকে গ্রেফতার করে। শনিবার বিকালে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন বিমাতা বড়ভাই মোতালেব হোসেন (৬০) মোতালেবের স্ত্রী আলেমা (৫৫) ও তার ছেলে আশেক এলাহী (৪৫)। শুক্রবার (২৪ জুলাই) বিকালে ইউনিয়নের পন্ডিতপাড়া এলাকায় জমি নিয়ে বিমাতা দুই ভাইয়ের লোকজনদের মধ্যে মারামারি হয়। 

এতে ছোটভাই রুহুল আমীন গুরুতর আহত হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে আটটায় তার মৃত্যু হয়। মৃত রুহুল আমীন গোমনাতী ইউনিয়নের পন্ডিতপাড়া গ্রামের মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে।

আসামীদের বাড়ি উপজেলা গোমনাতী ইউনিয়নের পন্ডিতপাড়া এলাকায়। এ বিষয়ে নিহতের ছেলে কাওছার আলী বাদী হয়ে ডোমার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। 

মামলা সুত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিমাতা দুই ভাইয়ের মধ্যে বিরোধ চলছিল। শুক্রবার (২৪ জুলাই) সকাল ১১ টার দিকে রুহল আমীন ট্রাক্টর দিয়ে জমি চাষ করছিল। এসময় মোতালেব কিছু লোক নিয়ে বাঁধা দেয়। 

এতে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি শুরু হয়। রড, বাঁশ ও ধারালো ছুরির আঘাতে রুহুল আমীনসহ কয়েকজন গুরুত্বর আহত হয়। অন্যান্যদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলেও রুহুল আমীনের অবস্থার অবনতি ঘটলে সন্ধ্যায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে আটটার সময় রুহুল আমীনের মৃত্যু হয়। 

ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান মৃত্যু ও গ্রেফতারে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ময়না তদন্ত শেষে লাশ পরিবারের মাঝে হস্তান্তর করা হয়। এ পর্যন্ত তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য