সংবাদ প্রকাশের পর অবশেষে গাইবান্ধার ত্রিমোহনী সেতু'র সংস্কার কাজ শুরু

আশরাফুল ইসলাম গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধায় ত্রিমোহী সেতু সংযোগ সড়কে বেহাল অবস্থা শিরোনামে বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইন পত্র পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশের পরে এলজিইডির সবচেয়ে দীর্ঘ  "২৮ কোটি টাকার সেতুর সংযোগ সড়কের বেহাল অবস্থা পরিবর্তনে গাইবান্ধা এলজিউডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী  আহসান কবির ও সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী ছাবিউল ইসলাম ত্রিমোহনী সেতুর সংযোগ সড়কটি পরিদর্শন করেন । গতকাল  ৫ জুন শুক্রবার বিকালে গাইবান্ধার কাটাখালি নদীর ওপর প্রায় ২৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ত্রিমোহনী  সেতুর সংযোগ সড়ক  পরিদর্শন শেষে কাজ শুরু করার কথা নিশ্চিত করেছেন এলজিউডি'র এই কর্মকর্তারা। এলজিইডি সুত্রে জানা যায়,  গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সঙ্গে ঢাকা-দিনাজপুরে সড়ক পথে যোগাযোগ সহজ করতে   সাঘাটা উপজেলার কচুয়া ইউনিয়নের রামনগর এলাকায় কাটাখালি নদীর উপর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এর কনস্ট্রাক্শন অব লং ব্রীজ-১, উপজেলা এন্ড ইউনিয়ন রোড্স প্রজেক্টের (এলবিসি) আওতায় ত্রিমোহনী ঘাটের সেতুটি নির্মাণ কাজ হাতে নেয়া হয়।  এলজিইডির সবচেয়ে দীর্ঘ এই সেতুটির দৈঘর্য ৩৬০.৪০মিটার পিসি গার্ডার ব্রীজ। সেতুটি ২৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ঢাকার সুরমা এন্টারপ্রাইজ নির্মাণ কাজ সমাপ্ত করে। গত ২০১৯ সালের ৭ ডিসেম্বর জনসাধারণ ও যানবাহন চলাচলের জন্য আনুষ্ঠানিক ভাবে গাইবান্ধা-৪ ও গাইবান্ধা - ৫ আসনের সংসদ সদস্যরা উদ্বোধন করেন । চলতি বছরের মে মাসের মাঝামাঝি সময়ের বৃষ্টিতে সেতুর সংযোগ সড়কে প্রথমে এক ফুট ধসে যায়। কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারণে গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে এখন সংযোগ সড়ক পুরোটাই ধসের মুখে। একই সঙ্গে মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছিল এই সংযোগ সড়ক।ফলে রাতে যে কোনো গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। সংযোগ সড়কটি সংস্কার করায় বড় ধরণের দূর্ঘটনা হতে রক্ষা পেলো অত্র এলাকার সর্বস্তরের মানুষ। গাইবান্ধা এলজিইডি'র  সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী ছাবিউল ইসলাম এ বিষয়ে সাংবাদিকদের জানান,  বৃষ্টিতেই ত্রিমোহনী  সেতুর সংযোগ সড়ক ধসের সংবাদ প্রকাশের পরে  আমরা  সেতুটির সংযোগ সড়কটি পরিদর্শন শেষে তৎক্ষনিক সংস্কারের ব্যবস্থা গ্রহন করা হয় । সংযোগ সড়কটি ভাঙ্গা অংশটি দ্রুত সময়ে মেরামত করা হবে। গাইবান্ধাএলজিউডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী  আহসান কবির সাংবাদিকদের   জানান, বরাদ্ধ না থাকার কারনে এই সেতুর সংযোগ সড়কটি মেরামতের দেরী হয়েছে । আমরা গতকাল সেতুটির সংযোগ সড়কটি পরিদর্শন শেষে শ্রমিক দিয়ে মাটি ভরাটের কাজ শুরু করেছি । আগামী ৩ দিনের মধ্যে সম্পূর্ন সংযোগ সড়ক মেরামত করা সম্ভব হবে । 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য