নাটোরের বাগাতিপাড়ায় জামনগর ইউনিয়নে সেচ্ছায় ১২ জন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টানে

মোঃ রাজিবুল ইসলাম বাবু,
নাটোরের বাগাতিপাড়ায় জামনগর ইউনিয়নের রৌসুনগীরি পাড়ার গত রাত্রীতে ফরিদপুর থেকে এসে সেচ্ছায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে আসেছেন ১২ জন। জানাযায় ওই ১২ জন ফরিদপুর, বোয়ালিয়া থানা থেকে গত রাত্রি ঘটিকায় তারা বাসায় না গিয়ে জামনগর চৌধুরী পাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসে, নং জামনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল কুদ্দুস কে মুঠোফোনে জানান আমরা ফরিদপুর থেকে এসে চৌধুরী পাড়া প্রথমিক বিদ্যালয়ে আছি আৃরা বাড়ি যাবো না, এখন কোথায় থাকবো ১৫ দিন বলেন? ওই চেয়ারম্যান বলেন আপনারা ওই বিদ্যালয়ে রত্রি থাকে সকালে জামনগর উচ্চ বিদ্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হব। পরে শনিবার সকালে গ্রামপুলিশ চেয়ারম্যান এসে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে নেয়া হয় তাদের। ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে গ্রামের বাড়িতে ফিরছেন অনেকেই। তাদের মধ্যে অনেকেই দিনমুজুর। এরা একই পরিবারে গাদাগাদিকরে বসবাস করছে। ফলে তাদের হোম কোয়ারান্টাইনে থাকার পরিবেশ না থাকায় ১২ জনকে নেয়া হয় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে ১২ জনের সেখানে থাকা খাওয়ার সকল ব্যবস্থা করেছে উপজেলা প্রশাসন। এছাড়া প্রতিটি ইউনিয়ন পৌরসভায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইন প্রস্তুত রাখা হয়েছে উপজেলা প্রশাসন অফিস সূত্রে জানা যায়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রিয়াংকা দেবী পাল বলেন, করোনা প্রতিরোধে মানুষকে সচেতন করতে উপজেলা প্রশাসন সর্বদা কাজ করে চলেছে। ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে গ্রামের বাড়িতে ফিরছেন অনেকেই। তাদের মধ্যে হোম কোয়ারান্টাইন মানছেনা এবং কিছু মানুষ আছে একই পরিবারে বেশি মানুষ বসবাস করছে। ফলে হোম কোয়ারান্টাইন মানতে পারছেনা এমন পরিবারকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে রাখা হচ্ছে। উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন এবং একটি পৌরসভায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইন প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য