রাতের আঁধারে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছে "পাশে আছি" সংগঠন

আল-আফতাব খান সুইট, বাগাতিপাড়া, নাটোর প্রতিনিধিঃ
নবেল করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ এর প্রভাবে অসহায় হয়ে পড়া দুস্ত নাড়ী যেমন, বিধবা বা দিনমজুর নাড়ি যারা সংসারের একমাত্র উপার্জনকারী তাদেরকে রাতের আঁধারে তালিকা আকারে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছে নাটোরের বাগাতিপাড়ার সেচ্ছাসেবী সংগঠন "পাশে আছি" খাদ্য সহায়তা হিসেবে আছে, চাল কেজি, কেজি গমের আটা, আধা কেজি করে মসুরের ডাল, সসয়াবিন তেল, মুড়ি লবণ, কেজি আলু। এছাড়াও ১টি সাবান, ২০০ গ্রাম ডিটারজেন্ট পাউডার এবং ২টি দিয়াশলায়। নবগঠিত "পাশে আছি" সেচ্ছাসেবী সংগঠনটি ২০২০ সালের প্রথমে উপজেলার বিহারকোল বাজারে প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি একটি অরাজনৈতিক সেচ্ছাসেবী সংগঠন। নবগঠিত সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকেই নিঃস্ব হয়ে পড়া অসহায় মানুষকে শ্রম, খাদ্য নগদ অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করে আসছে। "পাশে আছি" সংগঠনের সদস্যদের সাথে কথা বলে জানা যায়, সারাদেশের ন্যায় এই উপজেলাতেও করোনার প্রভাব পড়ে। সেই প্রভাবের কারণে যে পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী নাড়ী, তারাই সবচেয়ে বেশি অসহায় হয়ে পরেছে। তাই তারা উপজেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে সেসকল পরিবারকে রাতের আঁধারে তাদের সামান্য সহযোগিতা পৌছে দিচ্ছেন। তারা আরও জানান, প্রথম ধাপে ৬৫ টি অসহায় নাড়ী পরিবাকে খাদ্য সহযোগিতা প্রদান করেন। একইভাবে গতকাল মঙ্গলবার (৭এপ্রিল) রাতে আরো ৪০টি নাড়ী পরিবারকে তাদের সহযোগিতা পৌঁছে দেন। উক্ত সংগঠনটির একজন অন্যতম সদস্য জানান, তাদের "পাশে আছি" সেচ্ছাসেবী সংগঠনটি ১১জন সদস্য দিয়ে গঠিত। তারা নিজেদের অর্থায়নে অসহায় নাড়ী পরিবারকে সাহায্য সহযোগিতা করছেন। তিনি আরও বলেন, সহযোগিতার পাশাপাশি তারা ১১শত ফেস মাক্স বিতরণ করেন এবং সবাইকে সচেতন নিরাপদ থাকতে জনসচেতনতা মূলক বক্তব্য রাখছে। এবং তাদের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি। "পাশে আছি" সেচ্ছাসেবী সংগঠনের বিষয়ে যে কোন তথ্য সহযোগিতা এবং কোন প্রশ্ন বা জিজ্ঞাসা থাকলে নিম্নোক্ত নাম্বারে অথবা -মেইলে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করা হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য