২০১৯ সালে ৪ বারের শ্রেষ্ঠ বিরামপুর থানা এবারও রংপুর রেঞ্জে বিরামপুর থানা শ্রেষ্ঠ হওয়ায় অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামানকে সম্মাননা দিলেন ডিআইজি


মিজানুর রহমান মিলন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ
বিরামপুরে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখাসহ মাদক উদ্ধার, মাদক ব্যবসায়ী অন্যান্য আসামি গ্রেফতার এবং থানায় আসা সাধারণ জনতাসহ অন্যান্যদের পুলিশীসেবা নিশ্চিত করায় রংপুর রেঞ্জে বিরামপুর থানা শ্রেষ্ঠ হওয়ায় ওই থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামানকে সম্মাননা স্মারক উপহার দিয়েছেন রংপুর রেঞ্জ পুলিশের উপ মহা-পরিদর্শক (ডিআইজি) দেবদাস ভট্টাচার্য্য বিপিএম।  ২০১৯ সালে এবার নিয়ে মোট বার রংপুর বিভাগের দিনাজপুর জেলার বিরামপুর থানা শ্রেষ্ঠ হওয়ায় অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামানকে ওই সম্মাননা দেয়া হয়। এছাড়া ডিসেম্বর মাসে সার্বিক কর্মকান্ডে শ্রেষ্ঠ হয়েছে দিনাজপুর জেলা পুলিশ বিরামপুর সার্কেল। গতকাল বুধবার সকালে রংপুর বিভাগের পুলিশের উপ মহা-পরিদর্শকের (ডিআইজি) কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত গত ডিসেম্বর মাসের আইনশৃঙ্খলা মাসিক সভায় ওই সম্মাননা দেয়া হয় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন রংপুর রেঞ্জের পুলিশের উপ মহা-পরিদর্শক (ডিআইজি) দেবদাস ভট্টাচার্য্য বিপিএম। অনুষ্ঠানে গত ডিসেম্বর মাসের সার্বিক কর্ম মূল্যায়নে বিরামপুর থানাকে বিভাগের শ্রেষ্ঠ থানা নির্বাচিত করা হয়। এরই অংশ হিসেবে ওই থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামানকে শ্রেষ্ঠত্বের সম্মাননা স্মারক দেয়া হয়। এছাড়া ডিসেম্বর মাসে রংপুর বিভাগে পুলিশের কর্ম তৎপরতায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখাসহ সার্বিক বিষয়ে জনগনকে পুলিশী সেবা প্রদানে মিকা রাখায় দিনাজপুর জেলা পুলিশ বিরামপুর সার্কেলকেও শ্রেষ্ঠ নির্বাচিত করা হয় ওই সভায়। সম্মাননা স্মারক প্রদান অনুষ্ঠানে ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামানের হাতে সম্মাননা স্মারক উপহার তুলে দেন। এর আগে পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন এই সম্মাননা দায়িত্ব পালনে পুলিশের কাজে যেমন গতি বাড়বে তেমনি পুলিশের প্রতি জনগনের আস্থা সম্মান বাড়বে। তিনি বলেন পুলিশ জনগনের বন্ধু। আর এটিকে মাথায় রেখে আন্তরিকতার সাথে সকলকে কাজ করতে হবে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখাসহ মাদক উদ্ধার, মাদক ব্যবসায়ীসহ অন্যান্য আসামি গ্রেফতারে সকলকে আন্তরিক হতে হবে। নারী শিশু আইনসহ যে কোন অভিযোগের বিষয়ে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়ে পুলিশের উপ মহা- পরিদর্শক বলেন থানায় পুলিশী সেবা নিতে আসা কেউ যাতে হয়রানির শিকার না হয় সেদিকটা খেয়াল রাখতে হবে। এছাড়া মাদক বিরোধী অভিযান সম্মিলিতভাবে চালাতে হবে। ওই সভায় আরও কিছু নির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন তিনি। পুলিশের অনুষ্ঠানে দিনাজপুর জেলা পুলিশ, বিরামপুর সার্কেল এবং বিরামপুর থানা রংপুর রেঞ্জে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করায় তিনি দিনাজপুর জেলা পুলিশসহ বিরামপুর থানা পুলিশকে অভিনন্দন জানান। অনুষ্ঠানে রংপুর রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি, রংপুর বিভাগের জেলার সকল পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সহকারি পুলিশ সুপার, সকল থানার অফিসার ইনচার্জসহ অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে বিরামপুর থানা গত অক্টোবর নভেম্বর মাসে পর পর দুইবার রংপুর রেঞ্জে বিরামপুর থানা শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করে। সম্মাননা পাওয়া বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামান মনির তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, অর্জন আমার নয়। এটা বিরামপুরবাসীর। তিনি সম্মাননা বিরামপুরবাসীর প্রতি উৎসর্গ করে বলেন আমাদের অভিভাবক দিনাজপুর জেলা পুলিশ সুপার  মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বিরামপুর সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মিঠুন সরকারের দিক নির্দেশনায় বিরামপুর থানা এলাকার সার্বিক আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ, মাদক উদ্ধার, জুয়া,চোরাচালান, বাল্যবিবাহ, যৌনহয়রানী প্রতিরোধ ,মাদক ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন মামলার আসামি গ্রেফতার, গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিলসহ থানায় সেবা নিতে আসা মানুষজনের সেবা প্রদান নিশ্চিত করায় ওই সাফল্য এসেছে। এই সম্মাননা পাওয়ায় তিনি বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ হিসাবে সকলের  প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন। এছাড়া সম্মাননা পাওয়ায় বিরামপুর থানা পুলিশের পক্ষ থেকে  ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্যসহ অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন তিনি। এদিকে রংপুর রেঞ্জে বিরামপুর থানা এবারসহ ২০১৯ সালে বার শ্রেষ্ঠ হওয়ায় বিরামপুরের বিভিন্ন মহল অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামানসহ বিরামপুর থানা পুলিশকে অভিনন্দন জানিয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য