রাজারহাটে বাবাকে নিজ বাড়ি থেকে বাহির করে দিলেন দুই কন্যা ও জামাতা


রাশেদ স্টাফ রিপোর্টার কুড়িগ্রামঃ 

কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার ব্যাপারী পাড়ার রমজান আলী শিকদার দাম্পত্যিকে ভিটে ছাড়ার অভিযোগ উঠেছে দুই কন্যার বিরুদ্ধে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায় গত শনিবার দুপুর ১২:০০ ঘটিকায় রমজান আলী শিকদারের দুই কন্যা রেনু বেগম ও লতা বেগম স্বদলবলে ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের ও রেনুর স্বামীকে নিয়ে বাবা রমজান শিকদার ও বিমাতা মা রত্না শিকদার থেকে জোর পূর্বক বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়।

রেনু বেগমের প্রতিবেশী চাচা লেবু সরকার বলেন রমজান শিকদারের প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর পারিবারিক আলোচনা করে বসত ভিটায় ৪ শতাংশ জমি দুই কন্যাকে দানপত্রে রেজিস্টারি করে দেন।কন্যাদ্বয় বৈবাহিক সুত্রে স্বামীর বাড়িতে ঘর সংসার করে আসছিলেন। এমতাবস্থায় গত শনিবার রেনু বেগম স্বামী নজরুল ইসলাম  ও শালীকা লতা বেগম পূর্ব পরিকল্পনা বাস্তবায়নে বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসে পারিবারিক আলোচনায় এক পর্যায়ে নিজ বাবা ও বিমাতা মায়ের উপর চড়াও হন। পরে তাদের স্বামীরা ভাড়াটে কিছু সন্ত্রাসীদের নিয়ে এসে বাবা রমজান শিকদার বিমাতা মা রত্না শিকদার কে লাঞ্চিত করে বাড়ি থেকে বের করে দেন।

এবিষয়ে রমজান আলী শিকদার  কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন চার শতক জায়গার উপর একটি ঘর ও একটি টি স্টল দিয়ে কোন রকমে দুই বেলা দুই মুটো ডাল ভাতের ব্যবস্থা করে জীবিকা নির্বাহ করছি। কয়েক মাস থেকে আমি জীবিত থাকা অবস্থায় আমার মেয়েরা আমাকে বসত ভিটা ছেড়ে দিতে চাপ দিতে থাকেন। আমি উপায়ন্তর না পেয়ে কুড়িগ্রাম আমলি আদালতে দানপত্র বাতিলের জন্য মামলা করি। এতে আমার মেয়েরা ও জামাইরা ক্ষুব্ধ হয়ে আমাকে ও আমার স্ত্রীকে মারতে মারতে বাড়ি থেকে বের করে দেন। রেনু বেগম ও লতা বেগমের সাথে একাধিক সাংবাদিক কথা বলতে চাইলে তারা সাংবাদিকদের অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন।

এবিষয়ে রাজারহাট থানা অফিসার ইনচার্জ রাজু সরকার বলেন বাবা ও মেয়ে পরস্পরে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। সুষ্ঠ সমাধানের লক্ষ্যে আমি উভয় পক্ষকে থানায় ডেকেছি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য