তেতুঁলিয়ায় রাতের আঁধারে মাদ্রাসার জমি দখলের চেষ্টায় বেড়া


মোঃ  কামরুল ইসলাম কামু, পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ
 

পঞ্চগড়ের তেতুঁলিয়া উপজেলার ভজনপুর এলাকায় অবস্থিত একটি মাদ্রাসার জমি দখলে রাতের আধাঁরে বেড়া দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। উপজেলার দেবনগড় ইউনিয়নের হাইওয়ের পাশে অবস্থিত ভজনপুর দারুস সালাম কেরাতুল কোরআন হাফিজিয়া মাদ্রাটির অবস্থান। এলাকাবাসি ও পুলিশ জানায় ‘এলাকার বাসিন্দা মকবুল হোসেন দীর্ঘদিন ধরে ওই মাদ্রাসার জমি দখলে নেওয়ার পাঁয়তারা করে আসছে। শনিবার রাতের আঁধারে গোপনে টিনের বেড়া দিয়ে জায়গাটি ঘিরে নেয়। পরদিন সকালে বিষয়টি সবার নজরে আসে।বিষয়টি তেতুঁলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানাকে অবহিত করা হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। এ সময় পুলিশ মাদ্রাসা কমিটির নিকট তাদের জমির কাগজপত্র দেখেন। সেখানে মোট জমির পরিমান সাড়ে ২৭ শতক।  

মাদ্রসাটির সভাপতি মোঃ হারুন উর রশিদ প্রধান ‘জানান মরহুম ইব্রাহিম বিগত ০২/০৬/১৯৯৮ ইং জমিটি মাদ্রাটির নামে দান করেন। এরপর থেকে জমিটি মাদ্রাসার নামে ভোগ দখল হয়ে আসছে । মকবুল হোসেন মাদ্রাসার সাইন বোর্ড সরিয়ে এই রাতের আঁধারে নিজের সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেয়।।  অথচ এই জমি নিয়ে বার বার নানা ষড়যন্ত্র করে আসছে ওই মকবুল হোসেন। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় সম্পূর্ন নতুন টিন ও বাঁশ দিয়ে জমির পরিধি দখল করে রাখা হয়েছে । এ সময় তেতুঁলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক এস আই মোঃ আব্দুল লতিফের নেতৃত্বে একদল পুলিশকে সেখানে দেখা যায়। 

এসময় ঘটনাস্থলে  উপস্থিত দেবনগড় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মহসিন-উল হক জানান ‘ বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার বৈঠক হয়। তারপরেও মকবুল এই জমিটি দখল নিতে রাতের আঁধারে বেড়া দেয়। এসময় সকলের উপস্থিতিতে ঘটনাস্থলে মকবুল হোসেন সহ উভয়পক্ষের একটি আপোষনামা মাদ্রাসা কমিটি পুলিশকে দেন।

এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে মকবুল হোসেনের সাথে কথা বললে তিনি জানান ‘ জমি আমার ‘দীর্ঘ ২০ বছর ধরে ভোগ দখল করছি। জমির মামলায় আমি  ডিক্রী পেয়েছি। আমার কাছে সেই কাগজপত্র আছে। আর আপোষের বিষয়ে তিনি বলেন ‘ আমি ১০৭ ধারায় মামলা করেছিলাম ‘ সেই মামলাটি আপোষ করি।’ বেড়া আগেই ছিলো ‘ আমি বেড়াগুলি ঠিকঠাক করে দিছি। দখল করবো কেন। এ ব্যাপারে পুলিশ উপ-পরিদর্শক মোঃ আব্দুল লতিফ বলেন ‘ যদি মকবুল হোসেন কাগজপত্র দেখাতে না পারে ‘ তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য