উলিপুরে অসুস্থ্য আওয়ামীলীগ নেতার পাশে দাঁড়ালেন প্রধানমন্ত্রী


রাশেদ , স্টাফ রিপোর্টার কুড়িগ্রামঃ

কুড়িগ্রামের উলিপুরে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি সাদেক আলী সাগর কে প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহিবল থেকে নগদ ১ লাখ টাকা প্রদান করা হয়েছে। শনিবার (২৩ জানুয়ারী) বিকালে ব্রহ্মপুত্র নদের দূর্গম চরাঞ্চলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই অসুস্থ্য নেতার হাতে নগদ অর্থ ও উপহার সামগ্রি তুলে দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও কুড়িগ্রামের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। এ ঘটনায় আবেগে আপ্লুত হয়ে উঠেন সাবেক এই আওয়ামীলীগ নেতা।

জানা গেছে, উপজেলার বেগমগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি সাদেক আলী সাগর (৬৩) একাধিকবার নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়ে বসত-ভিটা ও জমি-জমা হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়েন। এছাড়া দীর্ঘদিন থেকে প্যারালাইষ্ট জনিত কারনে অসুস্থ্য হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছিলেন। এ খবর জানতে পেরে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের নিদের্শনায় শনিবার বিকালে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন ছুটে যান সাদেক আলী সাগরের বাড়িতে। সেখানে প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে নগদ ১ লাখ টাকা, উপহার সামগ্রি ও শীতবস্ত্র প্রদান করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমি, কুড়িগ্রামের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর হাসিবুল হাসান, ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আব্দুর রহমান, বেগমগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান বেলাল হোসেন মাষ্টার, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আকতার হোসেন প্রমুখ। প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা পেয়ে আবেগ আল্পুত হয়ে পড়েন সাদেক আলী সাগর। এ সময় তিনি বলেন, এই দূর্গম চরাঞ্চলের একজন সাধারন কর্মীরও খোঁজ রাখেন তিনি। জননেত্রী শেখ হাসিনা যে মমতাময়ী মা তার প্রমাণ আজ আমি পেলাম। পর পর চার বার ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙ্গনে সাদেক আলী সাগরের বসত-ভিটা, জমি-জমা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। এরপর তিনি নিঃস্ব হয়ে পড়েন। 

এরমধ্যেই ২০২০ সালে প্যারালাইষ্টের কারনে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে সংসারের ৯ ছেলে-মেয়ে নিয়ে অতিকষ্টে দিনাতিপাত করেন। বর্তমানে তিনি শ্বশুর বাড়িতে একটি ঝুপড়ি ঘরে বসবাস করছেন। তিনি জানান, দেশ স্বাধীনের পর ১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধু যেদিন কুড়িগ্রামে আসেন তাঁর প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসার টানে একনজর দেখার জন্য দূর্গম চরাঞ্চল থেকে ছুটে যান। ২০১২-২০১৯ সাল পর্যন্ত ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতির দায়িত্বে থাকাকালীন সময় ২০১২ সালের ১ অক্টোবর গণভবনে আওয়ামীলীগের তৃনমূলের নেতা-কর্মীদের সাথে মত বিনিময় সভায় তিনি যোগ দিয়েছিলেন। এছাড়া রংপুর অঞ্চলে নেত্রীর যে কোন জনসভা হলেই তিনি ছুটে যেতেন। বর্তমানে তিনি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য। তিনি বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের ক্ষুদিরকুটি আক্কেল মামুদ ব্যাপারীপাড়া গ্রামের আব্দুল শেখের পুত্র।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য