জাতীয় শ্রমিক লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে কিশোরীগঞ্জে শ্রমিক সমাবেশ

মিজানুর রহমান মিলন, স্টাফ রিপোর্টারঃ 

বর্ণাঢ্য আয়োজনে নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জে জাতীয় শ্রমিক লীগের ৫১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় কিশোরীগঞ্জ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ উপলক্ষে আয়োজিত শ্রমিক সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন দেশবরেণ্য শ্রমিক নেতা বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুর বিভাগীয় কমিটির সভাপতি সৈয়দপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র জননেতা আখতার হোসেন বাদল। 

প্রধান বক্তা ছিলেন কিশোরীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মশিয়ার রহমান। অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন নীলফামারী জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের সাধারন সম্পাদক ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য বলেন সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মহসিনুল হক মহসিন, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম বাবু, কিশোরীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ মো. আবুল কালাম বারী পাইলট, নীলফামারী জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শিল্পী রাণী রায়, কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলাম বাবু, 

বিশিষ্ট পরিবহন শ্রমিক নেতা মো. মমতাজ আলী, মো. মানিক মিয়া প্রমুখ। এতে আমন্ত্রিত অতিথির বক্তব্য বলেন কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল আউয়াল। অনুষ্ঠানে সভা প্রধান ছিলেন কিশোরীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জাকির হোসেন বাবুল।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, শত প্রতিকূলতার মাঝেও জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। পৃথিবীর অনেক দেশ করোনাকালে স্থবির হয়ে পড়লেও করোনা মহামারিতে আমাদের দেশে উন্নয়নের অগ্রগতি ও অর্থনৈতিক চাকা সচল রয়েছে। 

দেশরত্ন মানবতার মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড চলমান রয়েছে। মেগা প্রকল্প পদ্মা সেতুতে স্পান বসানোর কাজ অব্যাহত রয়েছে। মেট্রোরেলের কাজ চলছে। ইপিজেড চালু আছে। সৈয়দপুরে ১৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের কাজ শুরু হয়েছে। বগুড়া থেকে সৈয়দপুর পর্যন্ত পাইপলাইনে গ্যাস আসার কাজ চলছে।

 সৈয়দপুর বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক করা হচ্ছে। অর্থনৈতিক অঞ্চল নীলফামারীতে হচ্ছে। এটি হলে হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। উত্তরাঞ্চলের স্বাদু পানি গবেষণা উপকেন্দ্রটি পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রে পরিণত করতে সরকার কাজ করছে। তিনি বলেন কিশোরীগঞ্জবাসীকে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বি করতে কৃষিভিত্তিক শিল্প গড়ে তুলতে বর্তমান সরকার উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে। 

তাই দেশের উন্নয়নে ও অর্থনীতির চাকা দ্রুত ঘূর্ণায়মান রাখতে বারবার দরকার শেখ হাসিনার সরকার। শ্রমিকদের স্বার্থ রক্ষায় পরিবহন সেক্টরকে সচল রাখতে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। তিনি বলেন করোনা পরিস্থিতিতে সবচেয়ে বেশী ক্ষতির শিকার হয়েছে পরিবহন শ্রমিকরা।শত প্রতিকুলতার মধ্যেও কস্টে জীবিকা নির্বাহ করলেও শ্রমিক ভাইয়েরা হাল ছাড়েননি। তারা আস্থা রেখেছেন আমাদের নেত্রীর প্রতি। 

এজন্য তিনি পরিবহন শ্রমিকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়ে সকলের উদ্দেশ্যে বলেন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করুন, দেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিতে সহায়তা করুন। গতকাল সোমবার জাতীয় শ্রমিকলীগের ৫১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীকে ঘিরে হাজার হাজার শ্রমিক জনতার উপস্থিতিতে আলোচনা সভা জনসভায় রূপ নেয়। 

শ্রমিকদের প্রিয় মুখ জননেতা আখতার হোসেন বাদলকে একনজর দেখতে স্থানীয় নারী পুরুষরা জলঢাকা-কিশোরীগঞ্জ মহাসড়কের দুই পাশে দাঁড়িয়ে থেকে প্রিয় নেতাকে হাততালির মধ্য দিয়ে অভিনন্দিত করেন। সভা শুরুর পূর্বে একটি বর্ণাঢ্য র্যালি কিশোরীগঞ্জের মূল সড়কগুলো ঘুরে এসে বিদ্যালয়ের মাঠে শেষ হয়। 

সমাবেশে কিশোরগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনসহ নীলফামারী জেলা পরিবহন শ্রমিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য