মালির হাত ও কামকাঠির নিপুণ ছোয়ায় ফুটে উঠছে প্রতিমার রূপ

হাসানুজ্জামান হাসান, লালমনিরহাটঃ
মালির হাত ও  কামকাঠির( প্রতিমা তৈরীর কাজে ব্যবহৃত বিশেষ উপকরণ )নিপুণ ছোয়াতে ফুটে উঠতে শুরু করেছে প্রতিমার রূপ। আসছে শারদীয়  দুর্গাউৎসবকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছে মালিরা (প্রতিমা শিল্পী)। ইতিমধ্যে দুর্গা উৎসবের আমেজ দেখা দিয়েছে মণ্ডপগুলোতে। মালিদের এখন ধ্যান,জ্ঞান, ধর্ম প্রতিমাতেই।

এমনটাই বলছিলেন লালমনিরহাট সদর এলাকার ১নং ফুলগাছ সরকারটারী সার্বজনীন দূর্গা মন্দিরে প্রতিমা তৈরি কাজে ব্যস্ত মালি শ্রী পূর্ণা বর্মন(৫৫)। ছোট বেলায় এই শিল্পকর্ম শিখেছিলেন প্রয়াত মালি খোকা বর্মনের কাছ থেকে। মালি পূর্ণার সাথে বর্তমান এবং বছরের অন্যান্য সময়ের ব্যস্ততা নিয়ে কথা বললে তিনি জানান,

হিন্দুদের বড় উৎসব দূর্গাপূজার সময় সাধারণত ভাদ্রের শুরু থেকে প্রতিমা তৈরির প্রাথমিক কাজ শুরু করা হয় তবে এ বছর করোনার প্রাদুর্ভাব থাকায় কাজ দেরিতে শুরু করতে হয়েছে। গতবছরও দুর্গাপূজার প্রতিমা তৈরীর কাজ করেছিলাম জেলার দুরাকুটি এলাকার জিরামপুরে। দুর্গাপূজার সময় ছাড়াও অন্যান্য সময়ে চাহিদা অনুযায়ী হরি,মহাদেব,মনসা,কালী সহ অন্যান্য মূর্তি তৈরি কাজে ব্যস্ত থাকি। 

করোনাকালীন সময়ে শারদীয় দুর্গাপূজা উৎযাপন বিষয়ে কথা বললে-লালমনিরহাট পূজা উৎযাপন কমিটির সভাপতি হীরা লাল রায় বলেন,গেল বছর জেলায় মোট ৫৬৮ টি মণ্ডপে পূজা উদযাপন হলেও এবার করোনাকালীন সময় হওয়ায়  এ পর্যন্ত আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারিনি। প্রশাসন থেকেও এখন পর্যন্ত তেমন কিছু জানানো হয়নি। 

তবে দ্রুতই পূজা উদযাপন কমিটির সঙ্গে প্রশাসনের একটি মিটিং হবার কথা রয়েছে। তিনি আরো বলেন,  সরকার যেভাবে দিকনির্দেশনা দেবেন সে অনুযায়ী আমরা পূজা উদযাপন সম্পন্ন করব।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য