হাবিপ্রবিতে জোড়া খুন: ছাত্রলীগ নেতা রায়হান গ্রেপ্তার

চৌধুরী নুপুর নাহার তাজ দিনাজপুরঃ 
দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই মেধাবী ছাত্র খুনের মামলার এজাহারভুক্ত আসামি জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হারুন অর রশিদ রায়হানকে (৩০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে নিজ বাড়ি রামনগর থেকে রায়হানকে গ্রেপ্তার করে কোতোয়ালী থানা পুলিশ। রায়হান দিনাজপুরের রামনগরের চামড়া ব্যবসায়ী মালিক গ্রুপের সভাপতি জুলফিকার আলী স্বপনের ছেলে।

কোতোয়ালী থানার ওসি মোজাফ্ফর হোসেন গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, রায়হানের বিরুদ্ধে আদালত থেকে ওয়ারেন্ট জারি থাকায় পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোর্পদ করে। তার নামে একাধিক মামলায় ওয়ারেন্ট রয়েছে।

হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জোড়া খুনের মামলায় ইতোমধ্যে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আবু ইবনে রজব ও দিনাজপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ শাখার সভাপতি সাব্বির আহমেদ সুজনকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের ১৬ এপ্রিল ভেটেরিনারি অনুষদের নবীনবরণ অনুষ্ঠানে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একাংশের সঙ্গে ছাত্রলীগের অন্য অংশের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষ চলাকালে সন্ত্রাসীদের গুলিতে বিবিএ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র জাকারিয়া ও কৃষি বিভাগের ছাত্র মাহমুদুল হাসান মিল্টন নিহত হন। এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে অজ্ঞাতনামা ৫০ থেকে ৬০ জনকে আসামি করে একটি এবং দুই পরিবারের পক্ষ থেকে আদালতে দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছিল।

চলতি বছর ৬ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করতে গেলে নিহত মিল্টনের মা ও জাকারিয়ার বাবাকে বিচারের আশ্বাস দেয়া হয়।

প্রভাবশালীদের স্থানীয় রাজনৈতিক দাপটের কারণে পাঁচ বছর পূর্ণ হলেও খুনিদের বিচারের আওতায় আনতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। একাধিকবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তনের পরও দুই ছাত্র হত্যা মামলার কোনো কূল-কিনারা করতে পারেনি কোতোয়ালী থানা পুলিশ।

অবশেষে আদালতের এক আদেশে গত বছরের মার্চে মামলাটি পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডিতে) স্থানান্তরিত করা হয়। ইতোমধ্যে এই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা একাধিক মামলার চার্জশিট আদালতে পাঠিয়েছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য