প্রাচীণ দূর্গ নগরী পঞ্চগড়ের ভিতরগড়ের প্রত্বতাত্বিক নির্দশনকে রক্ষা করতে হবে

মো. কামরুল ইসলাম কামুঃ 

উত্তরের শেষ জেলা পঞ্চগড়। প্রকৃতির অপরুপ ছোয়াঁয় গড়ে উঠেছে পঞ্চগড় জেলা। করতোয়া ও চাওয়া বিধৌত অঞ্চল পঞ্চগড়। এ জেলায় দেশের সর্ববৃহৎ প্রাচীন দুর্গনগরী ভিতগড় প্রতিনিয়ত ধ্বংসস্তূপে পরিনত হয়ে পড়েছে এটি সংরক্ষণ এখন সময়ের দাবি। 

বাংলাদেশ সহ পৃথিবীর ইতিহাসে এটি সু -প্রাচীন র্দুগ নগরী। প্রাচীল সভ্যতার নজিরবিহীন নির্দশণ এটি। দেশের উন্নয়নের সাথে সাথে আগামি প্রজন্মের জন্য এটি একটি ঐতিহাসিক ইস্যু হয়ে থাকবে এবং যা গবেষনার আওতায় নবদিগন্তে নজির স্থাপন করবে।

তাই এ বিষয়ে সু চিন্তিত উদ্যোগ নেওয়ার জন্য রোববার(২৭ সেপেটম্বর) পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি স্বারকরিপি প্রধান করা হয়। স্বারকলিপিটি প্রদান করেন ভূমিজ ও কারিগর নেতৃবৃন্দ। ভূ-প্রাকৃতিক ভাবে এই জেলার তিন দিকে ভারতীয় সীমান্ত থাকলেও হিমালয়ের খুব কাছের একটি সমতল এলাকা। তাই পঞ্চগড়কে হিমালয় কণ্যা বলা হয়। 

এই জেলার উপড় দিয়ে ৪৬ টি নদী প্রবাহিত হয়েছে। এই নদীগুলোর মধ্যে দশটি নদীর উৎপত্তি পঞ্চগড়েই। এতো নদী অন্যকোন জেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়নি। পঞ্চগড়ে নানা ধরনের পাখি দেখা যায়। শুধু মাত্র তেঁতুলিয়ায় দেখা যায়। পঞ্চগড় থেকে দেখা যায় কাঞ্চন জংঘা। প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ইচ্ছের প্রতিফলন সমতল ভূমিতে গড়ে ওঠা চা বাগানগুলো এই জেলার সৌন্দর্যকে দিয়েছে অনন্য মাত্রা।

তাছাড়া তেতুঁলিয়ায় রয়েছে চতুর্দেশীয়স্থল বন্দর বাংলাবান্ধা । ইতিহাস, প্রত্বতাত্বিক নির্দশন সহ এই অঞ্চলের রয়েছে বৈচিত্রময় সাংষ্কৃতিক পরিমন্ডল। প্রাচীন কালে নেপাল, ভূটান,চীন এবং ভারতের প্রখ্যাত পন্ডিত এবং জ্ঞানী ̧নিজনের পদচারনা ছিল এই জেলায়। খ্রিষ্ট্রিয় ষষ্ঠ অথবা সপ্তম শতকে গড়ে ওঠা বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ দুর্গনগরী ভিতরগড়ের অবস্থান পঞ্চগড়েই। 

রয়েছে প্রাচীন এবং মধ্যযুগের নানা ধরনের প্রত্বতাত্বিক নির্দশন। এসব ইতিহাস, ঐতিহ্য প্রত্বতাত্বিক নির্দশন, সাংষ্কৃতিক এবং প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অবলোকন করে আনন্দ উপভোগের জন্য প্রতিবছর দেশ বিদেশের লাখো পর্যটক ও গবেষক এই জেলায় ভ্রমণ করতে আসে। 

কিন্তু আজও এই জেলাকে সরকারি ভাবে পর্যটন জেলা হিসেবে ঘোষণা করা হয়নি। অযতেœ অবহেলায় এই জেলার প্রত্বতাত্বিক নির্দশনগুলো বিলুপ্তির পথে। দেশের সর্ববৃহৎ প্রাচীন দুর্গনগরী ভিতগড় প্রতিনিয়ত ধ্বংসস্ত’পে পরিনত হয়ে পড়ছে। আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্বেও ঐতিহাসিক ভাবে অত্যন্ত সমৃদ্ধ এবং পর্যটনের অপার সম্ভাবনাময় প্রাচীন দুর্গনগরী ভিতরগড় অবহেলায় হারিয়ে যাচ্ছে। সাধারন জনগণের জীবনে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ঘটবে। 

এই দেশের সব বৃহৎ প্রাচীণ দূর্গনগরী ভিতরগড়কে রক্ষা ও সংরক্ষণে রোববার পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি স্বারক লিপি প্রদান করা হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য