নীলফামারীতে পুলিশকে জনবান্ধব করতে বিট পুলিশিং কার্যক্রম শুরু

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
মুজিববর্ষের অঙ্গিকার পুলিশ হবে জনতার' এ শ্লোগানকে সামনে রেখে নীলফামারীতে শুরু হয়েছে বিট পুলিশিং কার্যক্রম। অপরাধ নির্মূল ও মানুষের ছোটখাটো সমস্যার সমাধান, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও পুলিশকে মানুষের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাওয়ার লক্ষে এই বিট পুলিশিং কার্যক্রম চালু করেছে নীলফামারী জেলা পুলিশ। 

এরেই ধারাবাহিকতায় আজ সোমবার (৩১ আগষ্ট) বিকালে সদর থানার কচুকাটা ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে বিট পুলিশিং কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন পুলিশ সুপার মো. মোখলেছুর রহমান বিপিএম, পিপিএম । 

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রুহুল আমিন, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম আজমিরুজ্জামান, ওসি তদন্ত মাহমুদ উন-নবী, কচুকাটা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ চৌধুরীসহ অন্যান্যের মধ্যে পুলিশ বিভাগের কর্মকর্তা, সাংবাদিক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কচুকাটা ইউনিয়ন বিট পুলিশিংয়ের ইনচার্জ এসআই আব্দুল জলিল ও উপস্থাপনায় এসআই সাইফুল ইসলাম। পুলিশ সুপার মোঃ মোখলেছুর রহমান বিপিএম, পিপিএম জানান, পুলিশের কার্যক্রম আরো জনমুখী ও জনবান্ধব করে গড়ে তোলার জন্য এই কার্যক্রম পরিচালিত হবে। 

জেলার ৬টি থানায় মোট ৭৪টি বিট পুলিশিং কার্যালয়ে এই কার্যক্রম চালু করা হবে। পুলিশি সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেবার লক্ষ্যে বিট পুলিশিং কার্যক্রম চালু করা হচ্ছে। প্রতিটি বিট পুলিশিং অফিসে একজন এসআই, একজন এএসআই ও দুইজন করে কনস্টেবলের সমন্বয়ে এই কার্যক্রম পরিচালিত হবে। 

পৌরসভাসহ উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে একইভাবে এই কার্যক্রম পরিচালিত হবে। তিনি আরো জানান, এতে করে স্থানীয় ছোটখাটো সমস্যা, বিবাদ, সাধারণ ডায়েরিকরণ বিট পুলিশের কার্যালয়ে সমাধান করা হবে। 

এছাড়া তারা মানুষের কাছ থেকে অভিযোগ গ্রহণ করবে। তারপর আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। মানুষ দ্রুত পুলিশি সেবা পাবে বলে জানান তিনি। অনুষ্টান শেষে সারাদেশে করোনায় পুলিশ সদস্যসহ যারা মারা গেছেন তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য