বেকার ভাতার নামে টাকা হাতিয়ে নেওয়া পলাশবাড়ীতে আওয়ামীলীগ নেতা আজাদুলের বিরুদ্ধে থানা অভিযোগ দিলো ৩০ ভুক্তভোগী যুবক যুবতি

আশরাফুল ইসলাম গাইবান্ধাঃ
করোনা ভাইরাসের এই সময়কালে সরকারি ভাবে বেকার ভাতা দেওয়ার কথা বলে উপজেলার যুবক যুবতিদের নিকট হতে ৪৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় আজ ২০ আগস্ট বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পলাশবাড়ী থানায় উপস্থিত হয়ে অভিযোগ দায়ের করেছে ৩০ জন ভুক্তভোগী যুবক যুবতি।

এ অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,বাদিসহ সংযুক্ত তালিকায় মোট ৩০ (ত্রিশ) জন বেকার যুবক-যুবতীদের নিকট হইতে সরকারী ভাবে বেকার ভাতার কথা বলিয়া জন প্রতি ২৫,০০০/- (পচিশ হাজার) হইতে ৩০,০০০/- (ত্রিশ হাজার) টাকা করিয়া বিভিন্ন তারিখ ও সময়ে গ্রহণ করে। 

ইহাতে আমাদের নিকট হইতে সর্ব মোট প্রায় ৪৮,০০,০০০/- (আট চল্লিশ লক্ষ) টাকা হাতিয়া নিয়া আমাদেরকে বেকার ভাতার কোন কার্ড না দিয়া বিভিন্ন ভাবে টালবাহানা করিতে থাকে। পরবর্তীতে বিবাদী বিষয়টি আপোষ মিমাংসা করার স্বার্থে বিবাদীর প্রতিষ্ঠানের নামীয় গত ইং ২৯/০৬/২০২০ তারিখে সোনালী ব্যাংক পলাশবাড়ী শাখার হিসাব নং-৫১১২০০১০১৩৩২৬ চেকে ৩০,০০,০০০/- (ত্রিশ লক্ষ) টাকার একটি নিজ স্বাক্ষ্যরীত চেক প্রদান করে।  

এরপরেও সময়মত আমাদের দাবীকৃত অর্থ ফিরিয়ে না দিয়ে নানা ধরণের তালবাহানা ও হুমকী-ধামকী দিতে থাকে। আমরা বিষয়টি নিয়া দীর্ঘ দিন ধরিয়া স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদের সহিত আলোচনা করিলে বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়ায় অভিযোগ করিতে বিলম্ব হইল। ঘটনার বিষয়ে সাক্ষী সংযুক্ত তালিকায় ০১ হইতে ২৯ জন। সাক্ষীগণ বিচারামলে প্রমান করিবেন।

অভিযোগকারীসহ ভুক্তভোগীরা জানান, বেকার ভাতা দেওয়ার কথা বলে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় আওয়ামীলীগ নেতা আজাদুল ইসলামের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি। আমরা এঘটনাটির সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছি। থানা পুলিশ বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস প্রদান করেছেন।

এবিষয়ে পলাশবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ ওসি তদন্ত মতিউর রহমান জানান, অভিয়োগ পেয়েছি অভিযোগের তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

উল্লেখ্য ,অভিযুক্ত আজাদুল ইসলাম  পলাশবাড়ী পৌর এলাকার জামালপুর গ্রামের মৃত নছের উদ্দিন সরকারের ছেলে পলাশবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য