পাটগ্রামে মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে ছেলের লাঠির আঘাতে মা হাসপাতালে

হাসানুজ্জামান হাসান, লালমনিরহাটঃ
লালমনিরহাটের পাটগ্রামে মেয়ের বসত বাড়ি নির্মাণ করতে গিয়ে ছেলের লাঠির আঘাতে আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন জমিনা বেগম নামে এক বৃদ্ধা। মাকে মারধরের ঘটনায় বিচার চেয়ে ভাই, ভাইয়ের স্ত্রী, ভাইয়ের শ্বশুর ও শাশুড়ীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেন ওই বৃদ্ধার বড় ছেলে নজরুল ইসলাম। শনিবার দুপুরে ওই উপজেলার শ্রীরামপুর ইউনিয়নের পূর্ব বটতলী বাজার ডাঙ্গীরপাড় এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। 

জানা গেছে, ওই এলাকার মৃত তফির উদ্দিনের ৬ পুত্র ও ১ মেয়ের মধ্য বেশ কিছু দিন ধরে বাবার কাছ থেকে প্রাপ্ত জমির ভাগা-ভাগি নিয়ে দ্বন্দ চলছে। ৬ ভাইয়ের মধ্যে ৫ ভাইয়ে বোন মালেকা বেগমকে তার সুবিধামত স্থানে বসতবাড়ি তৈরীর জন্য প্রস্তাব দিলেও মোজাফফর আলী নামে এক ভাই এতে বাঁধা দেয়। বোন মালেকা বেগম শনিবার দুপুরে তার ৫ ভাই ও মা জমিনা বেগমকে নিয়ে বাবার কাছ থেকে প্রাপ্ত জমিতে বাড়ি তৈরীর চেষ্টা করলে অপর ভাই মোজাফফর আলী ও তার লোকজন দলবদ্ধ হয়ে মালেকা বেগমের উপর হামলা করেন। 

মেয়েকে বাচাঁতে বৃদ্ধা মা জমিনা বেগম এগিয়ে এলে মোজাফফর আলী লাঠি দিয়ে তার বৃদ্ধা মা জমিনা বেগমও মারধর করেন। এ সময় মোজাফফর ও তার স্ত্রী, শ্বশুর ও শাশুড়ীসহ তার লোকজনের হামলায় বৃদ্ধা জমিনা বেগম, মালেকা বেগমসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। স্থানীয় গ্রাম পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে পাটগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি করান।

 এ ঘটনায় ওই বৃদ্ধা জমিনা বেগমের ছেলে নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে মাকে মারধরের ঘটনায় বিচার চেয়ে ভাই, ভাইয়ের স্ত্রী, ভাইয়ের শ্বশুর ও শাশুড়ীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেন। 

নজরুল ইসলাম বলেন, তার ছোট ভাই তার বোনের জমি দখল করার চেষ্টা করেন। এতে বাঁধা দিতে গেলে তার ছোট ভাই মোজাফফর তার মাকে মারধর করেন। এর আগেও তার ওই ছোট ভাই মোজাফর আলী তার বৃদ্ধা মাকে মারধর করে ছিলো। এ বিষয়ে অভিযুক্ত মোজাফফর আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

  
পাটগ্রাম থানার ওসি সুমন কুমার মোহন্ত বলেন, ভাই বোনদের মধ্যে জমির ভাগাভাগি নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে দ্বন্দ চলে আসছে। এ নিয়ে আগেও একটি মামলা হয়েছে। আজ আবারও তাদের মধ্যে মারামারি হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য