দিনাজপুরের প্রসাদপাড়ায় রাস্তার দাবিতে অবরুদ্ধ পরিবার ও এলাকাবাসীর মানববন্ধন

বিশেষ প্রতিনিধি দিনাজপুরঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়নের ঝাড়বাড়ীর প্রসাদপাড়ায় রাস্তার দাবিতে অবরুদ্ধ পরিবার ও এলাকাবাসীর মানববন্ধন সহ রাস্তা অবরোধ করেছে। রবিবার ০৭ জুন ২০২০ ইং সকাল ১০টায় প্রায় ঘন্টাব্যাপি উপজেলার ঝাড়বাড়ীর প্রসাদপাড়া সরকারি রাস্তা বন্ধ করার ফলে ২০ হিন্দু সম্প্রদায়ের পরিবার সহ অবরুদ্ধ হয়ে পড়া ৫০ পরিবারের সদস্য ও এলাকাবাসী মানববন্ধন করেছেন। মানববন্ধন শেষে ঝাড়বাড়ী ভূমি অফিসের সামনের রাস্তা ৩০ মিনিট অবরোধ করেন অবরুদ্ধ পরিবার ও এলাকাবাসীরা। সম্প্রতি উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়নের প্রসাদপাড়া গ্রামের শতবছরের যান চলাচলের সরকারি রাস্তা হঠাৎ করে পশ্চিমংশে বন্ধ করে দেয় মৃত বানুয়া বর্মনের ছেলে মহাদেব বর্মন। ফলে ৫০ পরিবার সহ এলাকাবাসীর ব্যবহৃত চলাচলের পথ বন্ধ হয়ে যায়। শ্রীমতি শেফালী সাহা সাংবাদিকদের বলেন, রাস্তা বন্ধ হওয়ার কারণে আমাদের সন্তানরা এক কিলোমিটার ঘুরে স্কুলে যেতে হয় এবং পাশে মন্দির আছে সেখানেও আমাদের অনেক রাস্তা ঘুরে যেতে হয়। শ্রী জগদীশ রায় সাংবাদিকদের বলেন, আমি এ কয়েক জনের ভ্যান চালক রাস্তা বন্ধ হওয়ার কারণে আমার ভ্যানটিও আর বাড়িতে ঢুকাতে পারি না। এখন অন্য মানুষের বাড়িতে রাখতে হয় ভ্যান। আমার জন্ম থেকেই এই সরকারি রাস্তা দেখে আসতেছি অথচ হঠাৎ করেই রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হলো। মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, আমাদের শত বছরের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে, আমরা ৫০ থেকে ৬০টি পরিবার অবরুদ্ধ অবস্থায় আছি। হাট বাজার করতে পারতেছিনা এবং একদম কোন রকম বের হওয়ার মতো চৌরাস্তা নেই। নিরুপায় হয়ে আজকে আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তায় নামতে বাধ্য হয়েছি। আমরা অবরুদ্ধ পরিবারগুলো প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। শতগ্রাম ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শ্রী ধনেশ রায় বলেন, আমরা ছোটবেলা থেকেই এই রাস্তা দেখে আসতেছি, ওখানকার জনগণের স্বার্থে রাস্তা খুব প্রয়োজন আমি মনে করি ওখানকার যাতায়াতের রাস্তা জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হোক। শতগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান কে. এম কুতুব উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, আমি জন্মসূত্রেই দেখে আসতেছি এটাই ছিল প্রসাদপাড়ার প্রথম যোগাযোগের রাস্তা, রাস্তাটি বন্ধ হওয়ার কারণে ৫০ থেকে ৬০ টি পরিবারের বের হওয়ার কোনো পথ নাই। ইউনিয়নের প্রাণকেন্দ্র প্রসাদপাড়া হওয়ার কারণে এই রাস্তাটি সবচেয়ে এখন গুরুত্বপূর্ণ। আমরা ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ওখানে গেলে, মহিলা নিয়ে আসে। তাদের উচ্চবাচ্য হয়, মারামারি করতে চায়, আমরা তো ওখানে গিয়ে মারামারি করতে পারিনা এবং ফোর্স এপ্লাই করতে পারিনা, এটা ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা সম্ভব। আমরা প্রশাসনের সহযোগিতা চাই। এদিকে বন্ধ রাস্তার ছবি তুলতে গেলে মহাদেব, ভুট্টু সহ তাদের পরিবারের সদস্যরা সাংবাদিকদের অশ্লীল ভাষায় গালাগাল সহ ক্যামরা ভাংচুরের সহ হাতাহাতি করার চেষ্টা করেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য