নীলফামারীতে স্ত্রী হত্যার দ্বায়ে স্বামী শশুর গ্রেফতার

রংপুর ব্যুরো অফিসঃ 
নীলফামারী সদর উপজেলার খোকশাবাড়ী সাবুল্লীপাড়ায় যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে ও গলা চেপে হত্যার ঘটনায় প্রধান আসামী স্বামী আর শশুরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

আদালতে দেয়া স্বীকোরক্তিমুলক জবানবন্দীতে তারা হত্যার কথা স্বীকার করেছে। আদালতের নির্দেশে তাদেরকে পাঠানো হয় জেলা কারাগারে। আজ শুক্রবার দুপুরে জেলা পুলিশ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, 

দিনাজপুরের বীরগঞ্জের কৃঞ্চপুর গ্রামের হাবিল শেখের মেয়ে হাবিবা আক্তার শারমীনের ১বছর আগে এক লাখ ২০হাজার টাকা যৌতুকের শর্তে বিয়ে হয় নীলফামারী সদরের খোকশাবাড়ী সাবুল্লীপাড়ার লাল মামুদের ছেলে মমিনুরের।

গরীব বাবা বিয়ের সময় ৮০ হাজার টাকা পরিশোধ করতে পারলেও বাকী থাকে ৪০হাজার টাকা। এ টাকার জন্য প্রায় চলতো শারমিনের উপর নির্যাতন। গত ৯জুন সকালে যৌতুকের টাকার জন্য স্বামী আর শশুর পিটিয়ে ও গলা চেপে গুরুতর আহত করে শারমিনকে। 

আশঙ্কাজনক অবস্থায় নিয়ে আসে নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতালে। তাকে রেফার্ড করা হয় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। রংপুর নেয়ার  পথে উত্তরা ইপিজেড এলাকায় তার মৃত্যু হয়। 

এ ব্যাপারে নিহতের বাবা বাদি হয়ে নীলফামারী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করে। 

পুলিশ সুপার,মুহাম্মদ মোখলেছুর রহমান বলেন যৌতুকের টাকার জন্য শারমিনকে হত্যার কথা তারা অকপটে বিজ্ঞ আদালতে স্বীকোরক্তিমুলক জবানবন্দী দিয়েছে। আদালতের নির্দেশে তাদের কারাগারে পাঠানো হয় ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য