নীলফামারীর ডোমারে শিশুসহ ৩ ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার


স্টাফ রিপোর্টার নীলফামারীঃ নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় পৃথক ঘটনায় শিশুসহ ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার (১০মে) দুপুরে উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের লালার খামার এলাকায় কাজি নজরুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন রাস্তার ধারে পরিত্যাক্ত ডোবায় এক অজ্ঞাত ব্যক্তির গলিত মরদেহ এলাকাবাসী দেখতে পেয়ে  পুলিশে খবর দেয়। ডোমার থানা পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে গলিত মরদেহ উদ্ধার করে। মৃত্যু ব্যাক্তি ডোমার পৌর এলাকার পূর্ব চিকনমাটি ভাটিয়া পাড়ার আব্দুল গনির ছেলে জাকিরুল ইসলাম (২৫) জাকিরুলের বাবা আব্দুল গনি লাশ দেখে তার ছেলে বলে শনাক্ত করেন। একই দিনে দুপুরে হরিণচড়া ইউনিয়নের খানাবাড়ী গ্রামে একরামুল হকের বাড়ীতে এক গৃহবধু পারিবারিক কলহে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, উক্ত ইউনিয়নের আশরাফুল ইসলামের স্ত্রী এক সন্তানের জননী মাহফুজা বেগম (১৮) শনিবার বিকালে শাশুড়ী বউয়ের ঝগড়া হওয়ায় রোববার সকাল ১০ টায় পাশবর্তী চাচা শ্বশুড় একরামুল হকের বাড়ী দাদি শ্বাশুড়ি মহিমা বেগমের ঘরে সবার অগোচরে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম গৃহবধূর গলায় ওড়না পেচিয়ে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। অপরদিকে সকালে ডোমার উপজেলার ভোগড়াবুড়ী ইউনিয়নের শব্দিগঞ্জ ফরেস্ট বেতবাগান থেকে  মোব্বাসের ()নামে এক শিশুর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে চিলাহাটি তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ। ওই শিশু পাশ্ববর্তী পঞ্চগড় জেলার দেবিগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ভাউলাগঞ্জ ইউনিয়নের নায়েক পাড়া গ্রামের আলমের ছেলে বলে জানা গেছে। এঘটনায় দেবীগঞ্জ থানা পুলিশ একই এলাকার স্বপন ইসলাম মিঠু(১৬) নামে একজনকে আটক করেছে। ডোমার থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান জানান, চিলাহাটিতে এক শিশুর উদ্ধারকৃত মরদেহ পাশ্ববর্তী উপজেলার বাসিন্দা হওয়ায় দেবীগঞ্জ থানা পুলিশ শিশুর মরদেহ নিয়ে যায়। এবং আমরা এক ব্যক্তির গলিত মৃত্যুদেহ উদ্ধার করেছি এক গৃহবধুর আত্মহত্যার খবর পেয়েছি কিন্তু খবর লেখা পর্যন্ত (বিকাল .৩০) মৃত্যুদেহ উদ্ধার করা হয়নি। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য