পুলিশের অভিযানে ইয়াবা উদ্ধার, মোটরসাইকেল মেকানিক আটক

মিজানুর রহমান মিলন,সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:সৈয়দপুরে মোটরসাইকেল রিপিয়ারিং করার আড়ালে ইয়াবা ব্যবসা পরিচালনা পরিচালনা করার সময় মো. নাসিম (৪০) নামে এক মোটর সাইকেল মেকারকে আটক করেছে পুলিশ। এসময় তাঁর দেহ তল্লাশী করে ৪০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার গভীর রাতে শহরের পাঁচমাথা মোড়স্থ হাতিখানা রোডের বিক্রমপুর ফল ভান্ডারের সামনে থেকে ওই মোটরসাইকেল মেকারকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় আজ বুধবার সৈয়দপুর থানায় মামলা দায়েরের পর মাদক ব্যবসায়ী নাসিমকে নীলফামারী জেল হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ। পুলিশ জানায়, সৈয়দপুর শহরের গোলাহাট নং উর্দূভাষী ক্যাম্পের নিজাম উদ্দিনের পুত্র নাসিম ওই এলাকায় মোটর সাইকেল রিপিয়ারিংয়ের দোকান খুলে বসে। দীর্ঘদিন ধরে মোটর সাইকেল রিপিয়ারিংয়ের আড়ালে সে চালিয়ে আসছিল ইয়াবা ব্যবসা। মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ক্রেতার সাথে যোগাযোগ করে পৌছে দিত ইয়াবা। চতুর ইয়াবা ব্যবসায়ী নাসিম মোটর সাইকেল রিপিয়ারিংয়ের আড়ালে সকলের চোখ ফাঁকি দিয়ে কয়েক বছর ধরে চালিয়ে আসছিল ইয়াবা বেচাকেনা। ফলে সে ধরাছোঁয়ার বাইরে ছিল। তরে তাঁর আচরণে এলাকার অনেকের কাছে সন্দেহ সৃষ্টি হয়। খবর পৌছে সৈয়দপুর থানা পুলিশের সহকারি উপ-পরিদর্শক মো. নুর আমিনের কানে। তিনি বিষয়টি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল হাসনাত খানকে জানিয়ে ওই মাদক ব্যবসায়ীকে ধরতে তৎপরতা শুরু করে। সোর্সও লাগানো হয় তার পিছে। অবশেষে মঙ্গলবার গভীররাতে সোর্সের দেয়া সংবাদে তিনি জানতে পারেন পাঁচমাথা মোড়স্থ হাতিখানা রোডের বিক্রমপুর ফল ভান্ডারের সামনে ইয়াবা নিয়ে অবস্থান করছে মোটর সাইকেল মেকানিক ইয়াবা ব্যবসায়ী নাসিম।পরে এস আই নুর-আমিন কনস্টেবল মোহাম্মদ আলী শাকিল ওই এলাকায় অবস্থান করা মাদক ব্যবসায়ী নাসিমকে আটক করে। এসময় সে নিজেকে মেকানিক বলে দাবি করে পরিস্থিতি ঘোলাটের সৃষ্টি করে। পরে থানায় খবর দিলে উপ- পরিদর্শক এমাদ উদ্দিন মো. ফারুক ফিরোজ সঙ্গীয় ফোর্স,নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। এসময় উপস্থিত মানুষজনের সামনে তাঁর দেহ তল্লাশী করে ৪০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। সে ওইসব ইয়াবা চৌমুহনী এলাকার মানিক নামে একজনের কাছ থেকে সংগ্রহ করছে বলে জানায়। এঘটনায় আজ বুধবার থানায় মামলা হয়েছে। সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল হাসনাত খান ইয়াবা উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,মামলাটি তদন্তের জন্য এস আই এমাদ উদ্দিন মো. ফারুক ফিরোজকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন আটক নাসিম মোটরসাইকেল রিপিয়ারিং করার আড়ালে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। এর সাথে জড়িত মুলহোতাকে বের করে আইনের আওতায় আনতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। মাদকের বিষয়ে কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা বলে জানান তিনি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য