জামা সেলাইয়ের মাপ দিতে গিয়ে দর্জির কাছে ৩য় শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষিত

জামা সেলাইয়ের মাপ দিতে গিয়ে দর্জির কাছে ৩য় শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষিত

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় তৃতীয় শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ব্যাপারে শিশুটির মা বাদী হয়ে বুধবার সকালে বেগমগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।    এর আগে রাতেই অভিযুক্ত আবুল খায়েরকে (৪৫) আটক করে পুলিশ। শিশুটিকে চিকিৎসা ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
৩য় শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষিত
ডেস্ক রিপোর্টঃ
নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় তৃতীয় শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ব্যাপারে শিশুটির মা বাদী হয়ে বুধবার সকালে বেগমগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। 

এর আগে রাতেই অভিযুক্ত আবুল খায়েরকে (৪৫) আটক করে পুলিশ। শিশুটিকে চিকিৎসা ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

বেগমগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রশিদ চৌধুরী জানান, একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী জামার মাপ দেওয়ার জন্য মঙ্গলবার বিকেলে কালিরহাট বাজারে আবুল খায়েরের দর্জি দোকানে যায়। এ সময় শিশুটিকে একা পেয়ে দোকানের পেছনে নিয়ে ধর্ষণ করে আবুল খায়ের। রাতে স্বজনরা শিশুটিকে চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। 

খবর পেয়ে রাতে কালিরহাট বাজার থেকে অভিযুক্ত দর্জি আবুল খায়েরকে আটক করে পুলিশ। তিনি কৃষ্ণরামপুর গ্রামের হোসেনুজ্জামানের ছেলে। 

এ ব্যাপারে মেয়েটির মা বাদী হয়ে বুধবার বেগমগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। 

এদিকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, জেলার সুবর্ণচর উপজেলার ধর্ষণের শিকার ১১ বছরের বাক প্রতিবন্ধী শিশুটি এখন আশঙ্কামুক্ত। আজ সকালে শিশুটির অস্ত্রপ্রচার সম্পন্ন হয়। প্রচুর রক্তক্ষরণ ও শ্বাসকষ্টের কারণে জরুরি হলেও মঙ্গলবার তার অস্ত্রপ্রচার সম্ভব হয়নি।
/নিউজ টোয়েন্টিফোর।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য