বঙ্গবন্ধুর আদর্শ রাজনীতির কর্মীবান্ধব এক অনুভূতির নাম কেন্দ্রীয় মৎস্যজীবী লীগ নেতা ইঞ্জিঃ আব্দুল আলিম

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
বঙ্গবন্ধুর আদর্শ রাজনীতির কর্মীবান্ধব ও স্বাধীনতার স্বপক্ষের ক্লিন ইমেজ রাজনীতির ইতিহাসে ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রাম, মিছিল মিটিংএ নিজেকে সক্রিয় রেখে যিনি বাংলাদেশ আওয়ামী মংস্যজীবী লীগকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন তিনি হচ্ছেন বাংলাদেশ আওয়ামী মংস্যজীবী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির যুগ্ন আহবায়ক ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বন ও পরিবেশ বিষয়ক(উপ-কমিটি)’র সদস্য এবং শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক(উপ-কমিটি)’র রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম। 

সম্প্রতি ক্যাসিনোকান্ড ও চাঁদাবাজির অভিযোগে ধসে পড়েছে ছাত্রলীগ, যুবলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগের শীর্ষ নেতৃত্ব। তাই দল এবার ক্লিন ইমেজ ও সুস্থধারার নেতৃত্ব সৃষ্টি করতে বদ্ধপরিকর। সেই বিবেচনায় ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম তার নৈতিক গুণাবলি, কর্মীবান্ধবতা, ব্যক্তিগত ইমেজ, জনসংযোগ, ত্যাগী মনোভাব, জনপ্রিয়তায় যেন আকাশচুম্বী। আওয়ামীলীগের শীর্ষ পর্যায়ের নীতি নির্ধারকরাও তার প্রতি সন্তুষ্ট। সারা বাংলাদেশে আওয়ামীলীগের নামে ব্যাঙের ছাতার মত অসংখ্য সহযোগী সংগঠন তৈরী করে দোকান খুলে বসলেও আওয়ামীলীগের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামীলীগের অংগসংগঠন হিসাবে মৎস্যজীবী লীগকে আগামী ২৯ নভেম্বর সম্মেলনের মাধ্যমে স্বীকৃতি দিতে যাচ্ছেন। ঐদিনে আওয়ামী মংস্যজীবী কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে পেতে চান সারা বাংলাদেশের তৃণমূল সক্রিয় নেতাকর্মীরা। 

মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিমের প্রতি দেশের সর্বস্তরের জনগন ও নেতাকর্মীরা অত্যন্ত ইতিবাচক। তাদের দাবি মংস্যজীবী লীগকে সফল সংগঠন হিসেবে পরিচিতি করতে পারেন ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিমের মত একজন পরিছন্ন রাজনীতিবিদ। তার মত তরুণ নেতা যদি উচ্চ পদে স্থান পায় তাহলে তো কোনো কথাই থাকে না। কেননা এই তরুণ নেতাদের চিন্তা-ভাবনা অনেক গতানুগতিক ও প্রগতিশীল। তাই আগামী ২৯ নভেম্বরের সম্মেলনে তাকে মংস্যজীবিলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দেখতে উন্মুখ নেতা কর্মী থেকে সাধারণ জনগন। রাজশাহী বিভাগ দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম এর নেতৃত্বে বৃহত্তম রাজশাহী মংস্যজীবীলীগ এক একটি সুসংগঠিত ও কর্মী বান্ধব সংগঠন হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছেন। 

এছাড়া আওয়ামীলীগ রাজনীতির সাথে জড়িত অনেক সিনিয়র নেতা-কর্মীরাও ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিমকে মংস্যজীবিলীগ বড় পদে দেখতে চান। তাদের দাবি, ছাত্রজীবন থেকে যে সংগ্রাম তিনি করে এসেছেন তার শীর্ষ নেতৃত্ব এখন সময়ের দাবি হয়েছে উঠেছে। কেননা যারা ছাত্রজীবন থেকে আওয়ামীলীগ রাজনীতি করে আসছে তারাই বঙ্গবন্ধুর প্রকৃত আদর্শের সৈনিক। তারা মনে প্রাণে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে অন্তরে লালনপালন করে। আর ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম ছাত্রজীবন থেকে আওয়ামীলীগ রাজনীতির সাথে জড়িত। এছাড়াও তিনি মংস্যজীবীলীগের একজন তৃণমূল পর্যায়ের নেতাও বটে। 

ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম ছাত্রজীবন থেকেই আওয়ামীলীগ রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। ত্যাগী এই নেতা ১৯৯৬-৯৮ সাল পর্যন্ত ডুয়েট ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক। পরে ১৯৯৮-২০০১ ডুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হন এবং অত্যন্ত দক্ষতার সাথে তার দায়িত্ব পালন করেন। একজন ছাত্রবান্ধব নেতা হিসেবে নিজেকে পরিচিত করে তুলতে সক্ষম হওয়ায় সর্বোচ্চ ভোটে তিনি প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদের জিএস নির্বাচিত হন। ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বন ও পরিবেশ বিষযক(উপ-কমিটি) এবং শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক(উপ-কমিটি)’র অন্যতম সদস্য। এছাড়া বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ নির্বাচন পরিচালনা কমিটির টিম সদস্য। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ(উপ-কমিটি)’র সাবেক সহ-সম্পাদক এবং বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মংস্যজীবী লীগের সাবেক সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। 

শৈশব থেকেই ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিমের মধ্যে একটা জনসেবামূলক মনোভাব ছিল। জনকল্যাণমূলক বিভিন্ন কর্মকান্ডের সাথে তিনি নিজেকে জড়িত রেখেছেন আপন মনে। প্রতি বছর শীতার্তদের মাঝে তিনি শীতবস্ত্র, কম্বল বিতরণ, বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ, এলাকার দুঃস্থ ও গরীব মানুষের মাঝে নগদ অর্থ, দুঃস্থ মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিনসহ গরীব মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের আত্মকর্মসংস্থান করা লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন বিরামহীন। তার এসব জনকল্যাণমূলক কর্মকান্ড তাকে জনগণের কাছে জনপ্রিয় করে তুলেছে। এছাড়া মসজিদ, মাদ্রাসা, কবরস্থানসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অকাতরে দান করে যাচ্ছেন। তিনি একজন সফল ব্যবসায়ীও। ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম মেগা গ্রুপ অব ইন্ডাঃ লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও আরবান গ্রুপের পরিচালক।

আগামী ২৯ নভেম্বর ৫ম ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে ঘিরে মংস্যজীবী লীগের নেতৃত্ব প্রসঙ্গে 'পরিকল্পিত বার্তা'কে ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা বিশ্বনেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল। দেশে এখন উন্নয়নের জোয়ার বইছে। তার নির্দেশে যে শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়েছে তা একদিন এই বাঙালী জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করবে। 

তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যাকে শীর্ষ নেতৃত্ব উপহার দিবে আমরা সকলে এক হয়ে তার সাথেই কাজ করবো। ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম দৃঢ়চিত্তে উচ্চারণ করেছেন ‘‘যতদিন বেঁচে আছি, শরীরের রক্ত আছে ততদিন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বকে মেনে চলবো। প্রাণের সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী মংস্যজীবীলীগ আমার প্রথম ও শেষ ঠিকানা। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে অন্তরে লালন করে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার আর্শিবাদ নিয়ে রাজপথে, আন্দোলন-সংগ্রামে, উন্নয়নে নিজের জীবনকে বিলিয়ে দিতে সদা প্রস্তুত ছিলাম, আছি এবং থাকবো।’’

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য