হাসান ও গফফাররের বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

১৮ অক্টোবর দৈনিক ইনানী, দৈনিক সমুদ্রকন্ঠ ও দৈনিক কক্সবাজার ৭১ সহ বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত "টেকনাফের হাজমপাড়ায় চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ" শিরোনামের সংবাদটি আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। এটি সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। আমরা হাসানুর রহমান, যুগ্ন আহ্বায়ক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, বাহারছড়া ইউনিয়ন শাখা, টেকনাফ ও আব্দুল গফফার, সাংগঠনিক সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, বাহারছড়া ইউনিয়ন শাখা, টেকনাফ। এলাকার একটি কু-চক্রী মহল আমাদের মান-সম্মান হানী করার লক্ষ্যে এধরণের ভুয়া সংবাদ প্রকাশ করে আমাদেরকে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আমরা এই মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আসল ঘটনা হল, আমরা আমাদের জমিতে বাউন্ডারি ওয়ালের কাজ নির্মানাধীন রয়েছে। সেখান অতীতে কিংবা বর্তমানে কোন চলাচলের রাস্তা ছিল না। ঐ কু-চক্রী মহল আমির হোসেনের নেতৃত্বে আমাদের নামে জঘন্য অপবাদ দিয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে আমাদেরকে বেকায়দায় ফেলার পায়তারা চালাচ্ছে। দিবালোকের মত স্পষ্ট এলাকার সবাই অবগত থাকার পরেও তার লালিত কাউকে খুশি করার জন্য এমন জঘন্য অপবাদ আমাদের বিরুদ্ধে ছড়াচ্ছে। যাহা মোতেও বোধগম্য নয়। আমরা এলাকার সচেতন বাসিন্দা একই সাথে মাদক নির্মুল ও মানবপাচার প্রতিরোধ কমিটির সদস্য হই। সবসময় এসব অপরাধের বিরুদ্ধে সুচ্চার। এছাড়াও আমাদের জমিতে বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণের কাজ শুরু করা কালে কতিপয় সঙ্গবদ্ধ মানবপাচারকারী সিন্ডিকেট আমাদের কাজ থেকে চাঁদাদাবী করে। তাদেরকে চাঁদা না দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে সাংবাদিক ভাইদেরকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে একটি জঘন্য মিথ্যা ও বিভ্রান্তমূলক সংবাদ প্রকাশ করে আমাদের মানহানী করতে অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। আমরা এহেন মিথ্যা বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাই এবং কাউকে উক্ত সংবাদে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য সবিনয় অনুরোধ করছি।

প্রতিবাদকারী
হাসানুর রহমান ও
আব্দুল গফফার।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য