পঞ্চগড়ে তালমা নদী ভরাট বন্ধে হাই কোর্টের নির্দেশ


মো. কামরুল ইসলাম কামু, পঞ্চগড়ঃ
 

পঞ্চগড় জেলার তালমা নদী দখল ও ভরাট বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট। ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আদেশ বাস্তবায়নের জন্য জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আদেশ 

বাস্তবায়ন করে দুই সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের সমন্বয়ে গঠিত হাই কোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়। বাংলাদেশ প্রতিদিনে প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করে মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষ থেকে রিট আবেদনটি দাখিল করা হয়। 

রিটের পক্ষে শুনানি করেন মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার নওরোজ চৌধুরী রাসেল।আদেশের সঙ্গে সিএস ও আরএস পর্চা অনুযায়ী দখলমুক্ত ও ভরাট বন্ধ করে তালমা নদী রক্ষায় বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তাকে কেন অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে রুল জারি করেছে আদালত। 

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে বন ও পরিবেশ সচিব, পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালক, বিআইডব্লিউটিএর পরিচালক, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।তালমা নদী নিয়ে উইকিপিডিয়াতে বলা হয়েছে, ভারতের জলপাইগুড়ি জেলার বৈকুণ্ঠপুর জঙ্গলের পাহাড় থেকে উৎপন্ন হয়ে পঞ্চগড়ের ভিতরগড় অঞ্চলে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। 

এই নদী বাংলাদেশে প্রায় ২০ কিলোমিটার প্রবাহিত হয়ে পঞ্চগড় শহরের প্রায় ১০ কিলোমিটার পূর্বদিকে কাজলদীঘির নিকটবর্তী করতোয়া নদীতে পড়েছে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য