ডোমারে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা

রতন কুমার রায়,স্টাফ রিপোর্টার: 

নীলফামারীর ডোমারে ইয়াছিন আলী(২০) নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার ছাত্রীটির খালাতো ভাই ইছাহাক আলী বাদী হয়ে ডোমার থানায় মামলা দায়ের করেন।

গত বৃহষ্পতিবার দুপুরে উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের পুর্ব বোড়াগাড়ী হলদিয়াবন এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। ইয়াছিন আলী উক্ত এলাকার মো. মজিবর রহমানের ছেলে। 

ভুক্তভোগী ছাত্রীটি জানায়, গত এক বছর পুর্বে আমি পুর্ব বোড়াগাড়ীর হলদিয়াবন এলাকায় আমার নানী মোছাঃ নবীজান বেগম এর বাড়ীতে থেকে লেখাপড়া চালিয়ে আসছি। সেখান থেকেই বোড়াগাড়ী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি হই। আমার মা ঢাকায় গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে কাজ করে। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে বাড়ীতে কেউ ছিলনা এ সময় আমি গোসল করার জন্য ঘরে কাপড় আনতে যাই। ঘরের ভিতরে প্রবেশ করার পরে ইয়াছিন আলী পিছন দিক থেকে এসে আমার মুখ চেপে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা করে। আমি তার হাত থেকে রক্ষা পেতে আপ্রান চেষ্টা চালাই। কিন্তু মুখ থেকে তার হাত সরাতে না পেরে টিনের চাটিতে পা দিয়ে আঘাত করতে থাকলে আমার মামা রফিক ইসলাম শব্দ পেয়ে বাড়ীতে আসলে লম্পট ইয়াছিন দৌড়ে পালিয়ে যায়। 

ছাত্রীটি কান্নাজড়িত কন্ঠে আরো জানায়, লেখাপড়ার জন্যই আমি আমার নানা বাড়ীতে এসেছি। এখান থেকেই আমি লেখাপড়া করে মানুষের মত মানুষ হয়ে আমার মায়ের মুখে হাসি ফুটাবো। কিন্তু এখানে এসে আমার এত বড় সর্বনাশ হবে জানলে লেখাপড়াই করতাম না। 

ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোস্তাাফিজার রহমান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্তকে দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য