আটকের পর মারা গেলো মেছো বিড়াল

মোঃ কামরুল ইসলাম কামু পঞ্চগড়ঃ 
পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার সীমান্ত এলাকায় চা বাগান থেকে বাঘ সন্দেহ একটি মেছোবিড়াল উদ্ধার করে স্থানীয়রা রোববার (৬ সেপ্টেম্বর)  বিকেলে। জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলাধীন দেবনগড় ইউনিয়নের শিবচন্ডী এলাকায় একটি চাবাগান থেকে ওই বাঘ মনে করে ওই প্রাণীকে আটক করে স্থানীয়রা।  

তবে রাতে বনবিভাগের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আটক হওয়া প্রাণীটি প্রাথমিক ভাবে মেছোবিড়াল বলে নিশ্চিত করে এবং  সংরক্ষণের জন্য খাঁচায়  তোলার সময় ওই মেছোবিড়ালটি মারা যায়। 
স্থানীয়রা জানান, রোববার বিকেলে উপজেলার শিবচন্ডী এলকার  ভারতের সীমান্ত ঘেষা একটি চা বাগানে ওই এলাকার আলম ও তাপস নামে দুই যুবক বেড়াতে গেলে হঠাৎ চা বাগান থেকে বের হয়ে ওই মেছো বিড়ালটি  আক্রমণ করার চেষ্টা করলে ওই দুই যুবক সাথে সাথে বাঘ বের হয়েছে এমন চিৎকার করলে সাথে সাথে স্থানীয়রা ছুটে আসে চা বাগানে। 

পরে স্থানীয়দের ধাওয়া খেয়ে করতোয়া নদীতে ঝাপ দেয় এবং পরে স্থানীয়রা ওই মেছো বিড়ালটিকে আটক করে ওই এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য ইসলামুল হকের বাড়ির সামনে বেধে রাখে।  এদিকে বাঘ ধরার খবরটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন এলাকা থেকে দলবেধে মানুষ দেখতে আসে এবং মানুষের ঢল নামে৷  পরে বন বিভাগের কর্মীরা খাঁচায় বন্দি করার সময় মারা যায়। 

এ বিষয়ে দেবনগড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহসিন উল হক জানান, বাঘ সন্দেহ শিবচন্ডী এলাকায় একটি মেছোবিড়াল আটক করেছে স্থানীয়রা। পরে বন বিভাগকে খবর দিলে বন বিভাগের কর্মীরা ঘটনাস্থলে আসে  এবং বাঘ নয় বলে এটি নিশ্চিত করেন তারা। 

এবিষয়ে তেঁতুলিয়া উপজেলা বিড অফিসার সহিদুল রহমান জানান, রোববার দুপুরে দুই যুবকে একটি বাঘ আক্রমণ করার চেষ্টা করলে বাঘটিকে আটক করেছে স্থানীয়রা এমন খবর পেলে আমরা ঘটনাস্থলে গেলে  আটক প্রাণীর ছবি তুলে বিভাগীয় বনবিভাগের কার্যালয়ে প্রেরন করলে প্রাথমিক ভাবে ওই প্রাণীটি বাঘ নয়, 

এবং সেটি মেছোবিড়াল বলে নিশ্চিত করেছেন। মেছোবিড়ালটি দূর্বল ও গলায় শিকল দিয়ে বাধার কারনে খাচায় বন্ধি  করার সময় মারা যায়৷  এটি ময়নাতদন্ত করা হবে তাই মৃত মিছোবিড়ালটি উদ্ধার করে নিয়ে আসা হয়েছে।  বিস্তারিত আমাদের জেলা বনবিভাগের অফিসার বলতে পারবেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য